অবশেষে সেই সাধারণ ছেলের সঙ্গেই জাপানের রাজকুমারীর বিয়ে

লাট সাহেবের মেয়ের সঙ্গে গরিবের ছেলের প্রেম-বিয়ে সাধারণত সিনেমার পর্দায় দেখা যায়, তবে এবার তা ঘটতে যাচ্ছে বাস্তবে। তাও আবার রাজপরিবারে। জাপানের ক্রাউন প্রিন্স ফুমিহিতো তাঁর কন্যার বিয়ে এক সাধারণ ছেলের সঙ্গেই মেনে নিয়েছেন।

ক্রাউন প্রিন্স ফুমিহিতোর মেয়ে রাজকুমারী মাকোর বাগদান হয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া প্রেমিক কেই কোমুরোর সঙ্গে। ২০১৮ সালে বাগদান হলেও আর্থিক জটিলটায় আর বিয়ে করা হয়নি তাঁদের। তখন ক্রাউন প্রিন্স রাজি না থাকলেও অবশেষে দীর্ঘদিন পর সেই বিয়েতে রাজি হয়েছেন তিনি।

গতকাল সোমবার স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। কোমুরোর মায়ের ‘আর্থিক জটিলতায়’ আটকে যাওয়া বিয়েতে আর কোনো বাধা রইল না।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, রাজপরিবারের বাইরে কাউকে বিয়ের মধ্য দিয়ে রাজকুমারী তকমা হারাতে যাচ্ছেন মাকো। তিনি আর রাজকুমারীর মর্যাদা পাবেন না।

জাপানের রাজপরিবার আইন ১৯৪৭ অনুসারে, রাজকন্যারা সাধারণ ব্যক্তিকে বিয়ে করলে রাজপরিবার ছাড়তে হয়। জাপানের আইন অনুযায়ী, রাজপরিবারের নারী সদস্যরা সাধারণ কোনো মানুষকে বিয়ে করলে রাজকীয় উপাধি ত্যাগ করতে হয়।

কোমুরো ২০১৮ সালের আগস্ট থেকে নিউইয়র্কের ফোরহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বার এক্সাম দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে পড়াশোনা করছেন। ২০১৭ সালে সেপ্টেম্বরে ২৯ বছর বয়সী প্রিন্সেস মাকো ও কোমুরো তাঁদের বাগদানের পরিকল্পনা ঘোষণা করেন। ২০১৮ সালে নভেম্বরে তাঁদের বিয়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ফেব্রুয়ারিতে জানিয়ে দেওয়া হয় ২০২০ সাল পর্যন্ত তাঁদের বিয়ের প্রস্তুতি স্থগিত করা হয়েছে।