অর্থ লোপাট: পিকের আরেক বান্ধবী গ্রেফতার

প্রশান্ত কুমার হালদারের (পিকে হালদার) ঘনিষ্ঠ বান্ধবী ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের ভাইস চেয়ারম্যান নাহিদা রুনাইসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

অন্য দুই জন হলেন- ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের ভারপ্রাপ্ত এমডি সৈয়দ আবেদ হাসান ও সিনিয়র ম্যানেজার রাফসান রিয়াদ চৌধুরী।

সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করে পালিয়ে যায় পি কে হালদার। তারপর একের পর এক বেরিয়ে আসছে নানা তথ্য।   

 মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) বিকেলে সংস্থার উপপরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধানের নেতৃত্বাধীন দুদকের টিম সেগুনবাগিচা থেকে তাদের গ্রেফতার করে।

এর আগে নাহিদা রুনাইয়ের সব আর্থিক হিসাব তলব করে ৮০টি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দেয় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

সকালে এনবিআরের সিআইসি বিভাগ থেকে ওই চিঠি দেওয়া হয়েছে। নাহিদা রুনাই ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

চিঠিতে নাহিদা রুনাইয়ের সঞ্চয় হিসাব, চলতি হিসাব, ঋণ হিসাব ও বিদেশি মুদ্রার হিসাব, ক্রেডিট কার্ড, ভল্ট, সঞ্চয়পত্র, ডিপোজিট স্কিম ও বেনিফিসিয়ারি ওনার্স অ্যাকাউন্টসহ যাবতীয় তথ্য চাওয়া হয়েছে।

পিকে হালদার ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে করা দুদকের পাঁচ মামলায়ও নাহিদা রুনাই অন্যতম আসামি। অর্থ লোপাটে সংশ্লিষ্টতায় দুদকের আসামিদের আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতেও নাহিদা রুনাই এর বিভিন্ন ব্যাংক হিসাবে ৭২ কোটি টাকা লেনদেনের তথ্য আছে।

এর আগে সোমবার পি কে হালদারের সহযোগী ১২২ জনের ওপর বিদেশ যাওয়ার নিষেধাজ্ঞার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।