অলিম্পিকের ইতিহাসে প্রথম তৃতীয়লিঙ্গের অ্যাথলেট

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিড়াযজ্ঞ অলিম্পিকের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন তৃতীয়লিঙ্গের এক অ্যাথলেট। তিনি আগামী মাস থেকে শুরু হতে যাওয়া টোকিও অলিম্পিকে নিউজিল্যান্ডের নারী ভারোত্তোলন দলের হয়ে অংশ নেবেন। খবর প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিউজিল্যান্ডের লরেল হুবার্ড হতে যাচ্ছেন অলিম্পিক ইতিহাসের প্রথম তৃতীয়লিঙ্গের অ্যাথলেট। অংশগ্রহণের যোগ্যতার প্রয়োজনীয়তাগুলো সংশোধন করার পর তাকে সুযোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অলিম্পিক কমিটি।

২০১৩ সালে তিনি তৃতীয়লিঙ্গে রুপান্তর হন। এর আগে পুরুষদের ইভেন্টে অংশ নিতেন লরেল হুবার্ড।

সমালোচকরা বলছেন, হুবার্ডকে অন্যায় সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। তবে অনেকেই এটির প্রশংসা করে গেমসে তাকে অন্তর্ভুক্তির পক্ষে যুক্তি দেখিয়েছে।

আজ সোমবার (২১ জুন) নিউজিল্যান্ড অলিম্পিক কমিটির এক বিবৃতিতে লরেল হুবার্ড বলেন, নিউজিল্যান্ডবাসী আমার প্রতি যে দয়া ও সমর্থন জানিয়েছে তাতে আমি কৃতজ্ঞ ও বিনীত।

আসন্ন অলিম্পিকে নারীদের ৮৭ কেজি ভারোত্তোলন ক্যাটাগরিতে লড়বেন ৪৩ বছর বয়সী তৃতীয়লিঙ্গের এই অ্যাথলেট।

এর আগে ২০১৫ সালে এ সংক্রান্ত আইনটি পরিবর্তন করে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি (আইওসি)। সিদ্ধান্ত মোতাবেক, যদি টেস্টোস্টেরনের (পেশীর ভর বাড়াতে সহায়তা করা হরমোন) স্তর একটি নির্দিষ্ট প্রান্তিকের নীচে থাকে তাহলেই কেবল নারীদের ক্যাটাগরিতে অংশ নিতে পারবেন তৃতীয়লিঙ্গের অ্যাথলেটরা।