আলোচনায় মুশফিকের ‘বাজে কিপিং’, যা বললেন তামিম

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টিতেও লজ্জাজনকভাবে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং কোনো ডিপার্টমেন্টেই ভালো করেনি টাইগাররা। শুধু ফিল্ডাররাই নন; উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়েও বেশ কয়েকবার ব্যর্থ হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। যা নিয়ে এখনও সমালোচনা শুনতে হচ্ছে মি. ডিপেন্ডেবলকে।

শুধু তাই নয়, মুশফিকের কিপিং গ্লাভসগুলো খুলে নিয়ে দায়িত্ব লিটন দাস বা মোহাম্মদ মিঠুনকে দেওয়ার দাবিও জানিয়েছেন অনেকে। শনিবার সেই প্রসঙ্গে গণমাধ্যমক কর্মীদের প্রশ্বের জবাবে অধিনায়ক তামিম জানান, বাংলাদেশ দলের সেরা কিপারই কিপিং করেছে। তিনি বলেন, হ্যাঁ, আমার দলের সেরা কিপারই কিপিং করেছে। পরিসংখ্যানে যদি যাই, মুশফিকই সেরা কিপার।  

মুশফিক কি তার কিপিংয়ের দায়িত্ব ধারাবাহিক রাখবেন নাকি ছেড়ে দেবেন? সে প্রশ্ন ওঠা আগেই তামিম বলেন, ‘আপনি বলতে পারেন লিটন, মিঠুন বা সোহানের কথা। কিন্তু মুশফিক গত ১৫-১৬ বছর ধরে কিপিং করছে। সে কিপিং করবে নাকি করবে না, সেটা বিবেচনার ভার তারই। এই অধিকার সে অর্জন করেছে। আমি এটা অনুভব করি। সে যদি কিপিং চালিয়ে যেতে চায়, অধিনায়ক হিসেবে আমি অবশ্যই তাকে সমর্থন দেব।’

মুশফিকের সমর্থনে তামিম আরও বলেন, ‘আমি জানি, সে কতটা কঠোর পরিশ্রম করে। হয়তো দু-একটা ভুল হয়ে যাচ্ছে তারা। কিন্তু ভুল তো সবাই করি । আমি এমন নই যে মুশফিককে গিয়ে বলব, ‘না, তোমাকে কিপিংয়ে চাই না।’ আমি নিশ্চিত, আমি যেমন দলের ভালোর কথা ভাবছি, সেও সেটা ভাবে। তার যদি মনে হয়, তার চেয়ে ভালো কিপার দলে আছে, তাহলে সেটা তার সিদ্ধান্ত। যদি চালিয়ে যেতে চায়, সেখানেও পাশে থাকব।’

কিইউ কন্ডিশনে শুধু মুশফিকের কিপিং প্রশ্নবিদ্ধ নয়, অন্যান্যরাও বাজে ফিল্ডিং করেছেন বলে জানান তামিম।