ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে তামিম-মিঠুনের উন্নতি

নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ওয়নাডে হারলেও বাংলাদেশ লড়াই করেছিল। এই ম্যাচে দারুণ হাফ সেঞ্চুরি করেন সফরকারী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ মিঠুন। তাতে ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে উন্নতি হয়েছে দুজনের।

নিউ জিল্যান্ডকে ২৭২ রানের টার্গেট দিয়ে চেপে ধরেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ক্যাচ মিসে ১০ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটে হেরে যায় তারা। এই ম্যাচে ১০৮ বলে ১১ চারে ৭৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন তামিম। তাতে ব্যাটসম্যান র‌্যাংকিংয়ে তিন ধাপ এগিয়ে ১৯তম বাঁহাতি ওপেনার।

বাংলাদেশের ৬ উইকেটে ২৭১ রানের সংগ্রহে ৭৩ রানের ছোটখাটো ঝড়ো ইনিংস খেলেন মিঠুন। ৫৭ বলে ৬ চার ও ২ ছয়ে ৭৩ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। ১২ ধাপ উন্নতি হয়েছে তার। ৯৪তম স্থান থেকে এখন তিনি ৮২তম।

নিউ জিল্যান্ডকে এক ম্যাচ আগেই সিরিজ জেতাতে অবদান রেখেছেন টম ল্যাথাম। দ্বিতীয় ম্যাচে ১১০ রানে অপরাজিত থেকে ক্যারিয়ার সেরা ৬৩১ রেটিং পয়েন্ট অর্জন করে ৩০তম স্থানে কিউইদের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক। ম্যাট হেনরি বোলার র‌্যাংকিংয়ে সেরা দশে ঢুকেছেন, ১১ থেকে আট নম্বরে। ৮ ধাপ এগিয়ে সেরা ২৫ বোলারের মধ্যে জায়গা পেয়েছেন মিচেল স্যান্টনার।

ভারতের বিপক্ষে পুনেতে বিশ্বকাপ সুপার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ৯৪ রান করে ক্যারিয়ার সেরা সপ্তম স্থানে ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টো। অধিনায়ক এউইন মরগান এক ধাপ এগিয়ে ২৪তম। অলরাউন্ডার বেন স্টোকস বোলার র‌্যাংকিংয়ে ৭৫ নম্বর থেকে ৬৪ নম্বরে এবং অলরাউন্ডার র‌্যাংকিংয়ে সতীর্থ ক্রিস ওকসকে টপকে সেরা তিনে।

ভারতের ম্যাচ জয়ী ৯৮ রানের ইনিংস খেলে দুই ধাপ উন্নতি হয়েছে শিখর ধাওয়ানের, ১৫তম স্থানে এই ওপেনার। পাঁচ ধাপ এগিয়ে শীর্ষ ২০ এর মধ্যে আছেন পেসার ভুবনেশ্বর কুমার। বোলার র‌্যাংকিংয়ে সবার উপরে আগে থেকেই অবস্থান করছেন নিউ জিল্যান্ডের ট্রেন্ট বোল্ট এবং ব্যাটসম্যান হিসেবে শীর্ষে ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও অলরাউন্ডার র‌্যাংকিংয়ে এক নম্বরে সাকিব আল হাসান।