‘কারও গার্লফ্রেন্ড হলেই বলিউডে সুযোগ পাওয়া যায় না’

মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে টলিউড অভিনেত্রী সায়নী দত্তের প্রথম হিন্দি সিনেমা ‘দ্য ওয়াইফ’। ছবি মুক্তি নিয়ে কিছুটা নার্ভাস তিনি। তার ভাষায়, এতটা পথ পেরিয়ে প্রথম হিন্দি ছবিতে সুযোগ পাওয়া, বিরাট যুদ্ধ। একইসঙ্গে আমি খুব নার্ভাসও। তবে নার্ভাসনেস এখন তুলনায় কম কারণ, সিনেমা হলে মুক্তি পাচ্ছে না, ওটিটিতে আসছে। হল রিলিজের চাপ মারাত্মক। আর এখানকার বিষয় একেবারেই কলকাতার মতো নয়। ন্যাশনাল অডিয়েন্স আমাকে প্রথমবার দেখবে, এক্সাইটেড তো বটেই।

কাজের অভিজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, সত্যি কথা বলতে, কাজের অভিজ্ঞতা ভীষণ ভাল। এখানে সবাই প্রফেশনালিজম মানে। হিন্দি ছবি করছি বলে বলছি না, কাজের সময় শুটিং করতে আসা শিল্পীদের এত সম্মান দেয় যে, কাজ করতে কোনও অসুবিধা হয় না। আর কো- অ্যাক্টর, তোমার অপোজিটে যে-ই কাজ করুক, সে যদি একটু সাপোর্টিভ হয় তাহলে আর তোমাকে কে দ্যাখে! যেটা আমি গুরমীতের ক্ষেত্রে পেয়েছি। সরমদ নতুন পরিচালক, নিজের মতো করে কাজ করে। ইংরেজি ছবি দেখে বড় হয়েছে। ফলে ওই জায়গাটা ধরে রেখেছে। আমাদের কোনও অসুবিধা হয়নি।

তিনি আরও বলেন, এখানে প্রতিযোগিতার কোনও জায়গা নেই। টলিউডে কিছু লোকের সঙ্গে সমস্যা আছে। আমার মনে হয়, তারা অকারণে এত অপমান করেছেন একসময় তা আর নতুন করে বলার নয়। তাদের সঙ্গে আমার কোনও ব্যক্তিগত সম্পর্কও নেই। একইসঙ্গে টলিউডে আমার কিছু ভাল বন্ধু-বান্ধবও আছে। যেমন, সাহেব (ভট্টাচার্য) এখনও আমার খুবই ভাল বন্ধু। ঋতুদি (ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত) কোনওদিন আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেনি। ইনফ্যাক্ট কারও সঙ্গেই ঋতুদি সেটা করে না। প্রিয়াংকার সঙ্গে আমার খুব ভাল টার্মস। যাদের সঙ্গে ভাল ছিল, আছেই।

স্ট্রাগল করা প্রসঙ্গে এই নায়িকা বলেন, মুম্বাইয়ে এর গার্লফ্রেন্ড, তার গার্লফ্রেন্ড বলে ছবিতে ঢোকানো যায় না, এটা বড় মুখে বলতে পারি। কলকাতায় যেটা হয়। বলিউডে এত বেশি টাকা লাগানো হয় ছবির ক্ষেত্রে, সেখানে ব্যবসায়ী ওরা, প্রথম থেকে শেষপর্যন্ত দেখে। দেখুন, লবিং সব জায়গায় আছে। এর থেকেও এখানে ঠিক করে কাজ করতে পারলে, লোকের মুখে মুখে ছড়ায়। সেই ওয়ার্ড অফ মাউথে দশটা ফোনকল পাওয়া যায়। যেখানে লবিং আছে, তেমন জায়গাতেও গিয়েছি অডিশন দিতে। সেখানে কিন্তু আমাকে ডেকেছে অন্তত। কলকাতায় যেখানে লবিং আছে, সেখানে আমাকে ঢুকতেই দেয়নি। বলিউডে কিন্তু কারও গার্লফ্রেন্ড হলেই ছবিতে সুযোগ আসে না। ওখানে প্রফেশনালিজম অনেক বেশি।