গ্যাস নেই নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জে

পাইপলাইনের লিকেজ মেরামতের জন্য গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেয়ায় নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জ জেলার কোথাও গ্যাস নেই বলে জানিয়েছে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

পাইপলাইন মেরামতের কবলে পড়ে হঠাৎ বন্ধ হয়ে গেছে দুই জেলার গ্যাস সরবরাহ। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সকালে গোদনাইল ও সিদ্ধিরগঞ্জ গ্যাস সরবরাহ পাইপলাইনে লিকেজ মেরামত শুরু করলে বন্ধ হয়ে যায় পুরো নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জের গ্যাস সঞ্চালন। 

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে রাত ৮টায়। হঠাৎ গ্যাস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় গৃহস্থালির কাজ আটকে যাওয়াসহ বিপাকে পড়েছেন দুই জেলার লাখ লাখ মানুষ।

পাইপ লাইনে গ্যাস নেই সকাল থেকেই, তাই চুলা জ্বলেনি মুন্সিগঞ্জের অধিকাংশ পরিবারের।

এই জেলায় গ্যাস বিতরণকারী সংস্থা তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার সকালে গণমাধ্যমকে জানায়, নারায়ণগঞ্জের গোদনাইল-সিদ্ধিরগঞ্জ পাইপ লাইনে লিকেজ মেরামতের সময় সেখানে একটি ভাল্ব প্রতিস্থাপন করতে গিয়েই সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে দুই জেলায়। আকস্মিক এই পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন বাসিন্দারা।

বাসিন্দারা বলেন, সকাল থেকে খাওয়া-দাওয়া ও নাস্তা সব বন্ধ। ছেলে মেয়ে না খাওয়া অবস্থায় আছে।

এদিকে, এই পরিস্থিতি নারায়ণগঞ্জেও। সেখানকার আবাসিকসহ শিল্প-কারখানাতেও গ্যাস সংকটের ভোগান্তিতে পড়েছেন লাখো ব্যবহারকারী। করোনার মধ্যে গ্যাস সংকটে পড়ে উৎপাদন বিঘ্নিত হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন অনেক ব্যবসায়ী।

ব্যাবসায়ীরা বলেন, সকাল থেকেই গ্যাস সরবরাহ বন্ধ। যার কারণে আমরা অনেকটা চাপের মধ্যে পড়ে গেছি। এরকম বন্ধ থাকলে আমাদের ব্যবসায় ধ্বস নামবে। কাজ থাকলে আমাদের টাকা আছে, আর কাজ না থাকলে আমাদের টাকা নেই।

এদিকে, পাইপ লাইন মেরামতে নিয়োজিত কারিগরি দল জানিয়েছে রাত ৮টার আগে স্বাভাবিক হবে না পরিস্থিতি। এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে সংশ্লিষ্টদের দ্রুত মেরামত কাজ শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের সিদ্ধিরগঞ্জে একটা ভাল্ব নষ্ট হয়ে গেছে তো, এ কারণে এই সমস্যা হচ্ছে। ঠিক করতে সারাদিন লাগবে। সার্বক্ষণিক ঠিক থাকবে। যদি এইরকম আকস্মিক কোন ঘটনা না হয় তাহলে গ্যাস-বিদ্যুৎ থাকবে।

রমজানে আকস্মিক কোনো ঘটনা না ঘটলে গ্যাস ও বিদ্যুৎ পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।