চাকরির প্রলোভনে ধর্ষণ, দুজন রিমান্ডে

পোশাক শ্রমিককে ব্যাংকে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) কর্মচারী সনজিব কুমার দাস ও তার সহযোগী আনিকাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে দুই আসামিকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ। এসময় সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তাদের সাত দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সবুজবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আজগর আলী। পরে শুনানি শেষে বিচারক সত্যব্রত শিকদার প্রত্যেকের পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গতকাল সোমবার রাতে ধর্ষণের অভিযোগে মাদারটেক এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে সবুজবাগ থানা পুলিশ।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সবুজবাগ জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) রাশেদ হাসান বলেন, কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা এক নারীকে ব্যাংকে চাকরি দেয়ার লোভ দেখিয়ে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ মাদারটেকের একটি বাসায় ডেকে নিয়ে যান সনজিব দাস। তার সঙ্গে রাসেল, জামাল, আজিজুর রহমান ও আনিকা নামে এক নারী ওই বাসায় ছিলেন। সেখানেই ওই নারীকে সনজিবসহ বাকিরা ধর্ষণ করেন।

এ ঘটনায় সোমবার সবুজবাগ থানায় সনজিবকে ১ নম্বর আসামি করে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন ভুক্তভোগী। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আনিকা ও সনজিবকে গ্রেপ্তার করে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ওসি রাশেদ হাসান।