চেকপোস্টে বেড়েছে যানবাহনের চাপ

দেশব্যাপী কঠোর বিধিনিষেধের তৃতীয় দিনে রাজধানীর সড়কের বিভিন্ন চেকপোস্টে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। রবিবার (২৫ জুলাই) সকাল ৯টার দিকে রাজধানীর শেওড়াপাড়া, তালতলা, আগারগাঁও, শ্যামলী, কল্যাণপুর, কলেজগেট, বিজয় সরণি, ফার্মগেট ও কাওরান বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

কঠোর বিধিনিষেধের আগের দুইদিনের তুলনায় আজ রাস্তায় ব্যক্তিগত যানবাহন ও রিকশা চলাচল বেড়েছে। প্রয়োজনীয় কাজে অনেকে ব্যক্তিগত প্রাইভেটকার নিয়ে বের হয়েছেন।

বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে চেকপোস্টে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সরব উপস্থিতি বিদ্যমান রয়েছে। জনসাধারণের বাইরে বের হওয়ার কারণ জিজ্ঞাসাবাদ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সঠিক কারণ মিললে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। আর বিনাকারণে বের হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে। তবে অন্য দুইদিনের তুলনায় আজ রাস্তায় ব্যক্তিগত যানবাহন উপস্থিতি বেড়েছে। এছাড়াও জনসাধারণ রিকশায় করে প্রয়োজনীয় কাজে গন্তব্যে যাচ্ছেন।

ঈদের ছুটি শেষে আজ রবিবার গ্রাহক চাহিদামতো ব্যাংকের শাখা খোলা থাকবে। সকাল ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ব্যাংকে লেনদেন হবে। লেনদেন-পরবর্তী আনুষঙ্গিক কার্যক্রম বিকাল ৩টার মধ্যে শেষ করতে হবে। প্রয়োজনীয় ব্যাংকিং লেনদেন করতে অনেকে বের হয়েছেন।

রাজধানীর কলেজগেট এলাকায় চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করছিলেন ট্রাফিক ইন্সপেক্টর জহুরুল হক। গত দুইদিনের তুলনায় আজ যানবাহন ও মানুষের চলাচল বেশি। এ বিষয়ে তিনি দৈনিক ইত্তেফাক অনলাইনকে বলেন, ‘চিকিৎসা ও হাসপাতালে রোগী নিয়ে যেতে ও টিকা নেওয়ার জন্য অনেকে বের হয়েছেন। বেশিরভাগ মানুষই প্রয়োজনীয় কাজে বের হয়েছেন। তবে যারা বিনাকারণে বের হয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

গত ১৩ জুন বিধিনিষেধ আরোপ করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। ঈদের কারণে ওই আদেশে ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছিল। এরপর ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে নতুন করে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।