টানা জয়ের বিশ্ব রেকর্ড অস্ট্রেলিয়ার মেয়েদের দখলে

ক্রিকেটের ইতিহাসে টানা ম্যাচ জয়ের নতুন বিশ্বরেকর্ড গড়েছে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা। আজ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে খেলতে নামে তারা। এই ম্যাচটিতে নিউজিল্যান্ডের মেয়েদের বিপক্ষে ৬ উইকেটের জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়ান নারী দল। যার মাধ্যমে তারা টানা ২২টি ওয়ানডেতে জয়ের কীর্তি দেখিয়েছে। সর্বশেষ ২০১৭ সালের ২৯ অক্টোবর ওয়ানডে ম্যাচে হারের স্বাদ পেয়েছিল অজি নারীরা। টানা ২২টি ম্যাচে জয়ের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার পুরুষ দলের ১৮ বছর আগে গড়া সবচেয়ে বেশি টানা ম্যাচ জয়ের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে ম্যাগ ল্যানিং বাহিনী। ২০০৩ সালে তৎকালীন অধিনায়ক রিকি পন্টিংয়ের নেতৃত্বে টানা ২১টি ওয়ানডে ম্যাচ জয়ের কীর্তি দেখিয়েছিল পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ম্যাচটিতে প্রথমে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড ২১২ রান করতে সমর্থ হয়। ৪৯ ওভার ৫ বল খেলেই সবগুলো উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। নিউজিল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন ওপেনার লউরেন ডাউন। তার ব্যাট থেকে আসে ৯০ রান। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৩ রান করেন আমি সেটারওয়েট। নিউজিল্যান্ডের মিডল অর্ডার ও লোয়ার অর্ডারের সব ব্যাটসম্যান চরমভাবে ব্যর্থ হন। ফলে ডাউন ৯০ রানের ইনিংস খেলার পরও বেশিদূর আগাতে পারেনি কিউইরা। ম্যাচটিতে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বোলিংয়ে সবচেয়ে বেশি সাফল্য পেয়েছেন মেগান স্কুট। তিনি ৩২ রান খরচায় ৪টি উইকেট তুলে নেন। আর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট নেন নিকোলা কারে। তিনি এই ৩টি উইকেট পেতে ৩৪ রান খরচ করেন।

অ্যালিসা হেরি, এলিস পেরি ও অ্যাশলেইগ গার্ডনারের হাফসেঞ্চুরির ওপর ভর করে মাত্র ৩৮ ওভার ৪ বল খেলে জয়ের বন্দরে পৌছে যায় অজিরা। এই রান করতে তারা মাত্র ৪টি উইকেট হারায়।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন ওপেনার অ্যালিসা হেলি। তিনি মাত্র ৬৮ বল খেলে ৬৫ রান করে দলের জয় অনেক সহজ করে দেন। অপরদিকে ৭৯ বল খেলে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন পেরি। এই রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি। অজিদের হয়ে হাফসেঞ্চুরি পাওয়া আরেক ব্যাটসম্যান অ্যাসলে গার্ডনারও অপরাজিত ছিলেন। তিনি ৪১ বল খেলে ৫৩ রান করেন। ম্যাচটিতে নিউজিল্যান্ডের হয়ে সাতজন বল করেন। কিন্ত সাতজন বল করেও তারা অস্ট্রেলিয়ার মাত্র ৪টি উইকেট তুলে নিতে সমর্থ হয়েছে। নিউজিল্যান্ডের হয়ে ১টি উইকেট তুলে নেন জেস কের, হান্না রোয়ে, অ্যামেলিয়া কের ও অ্যামি স্যাটারওয়েট।