ডিজিটাল নিরাপত্তার জন্যই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: তথ‌্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘মানুষকে ডিজিটাল নিরাপত্তা দেওয়ার জন্যই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে। যখন এই ডিজিটাল বিষয়টা ছিল না, তখন আইনের প্রয়োগও ছিল না। যখন ডিজিটাল বিষয়টা এসেছে, তখন ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়টাও এসেছে।’

বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এ ধরনের আইন ভারতসহ বিভিন্ন দেশে আছে, এ তথ‌্য জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিবীর অনেক দেশে এ আইন অনুযায়ী গ্রেপ্তার ও শাস্তি হচ্ছে। তবে এ আইনের যাতে অপপ্রয়োগ না হয়, সেজন্য আমরা সতর্ক আছি এবং থাকব।’

২৬ মার্চের মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের বিষয়ে নাগরিক সমাজের আলটিমেটাম প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে বহু নাগরিক আছে। শুধু কয়েকজন মিলে দাঁড়িয়ে বললে, সেটিই করতে হবে, তা কিন্তু নয়। নাগরিক বলতে শুধু কয়েকজন যারা বক্তৃতা করেছেন, যারা সব সময় সরকারের বিরুদ্ধে বক্তৃতা করেন, তাদের বোঝায় না। বাংলাদেশে সুশীল সমাজের আরও বহু প্রতিনিধি আছেন।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, ‘কোনো আইনে যদি কেউ গ্রেপ্তার হয়, তিনি যদি কারাগারে কোনো কারণে মারা যান, সে কারণে যদি আইন বাতিল করতে হয়, তাহলে তো বাংলাদেশে সব আইন বাতিল করার কথা আসবে। কারণ, অন্যান্য আইনেও মানুষ গ্রেপ্তার হয় এবং কারাগারে নানা কারণে মৃত্যু হয়। তাহলে কি সেসব আইনও বাতিল করে দিতে হবে?’

গত বছরের ৬ মে লেখক মুশতাক আহমেদকে গ্রেপ্তার করার পর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। গত দশ মাসে কয়েকবার আবেদন করেও জামিন পাননি তিনি। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি রাতে গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কারাগারে মারা যান ৫৩ বছর বয়সী মুশতাক। এর পর থেকেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের জোর দাবি উঠেছে।