ঢাকার সাভারে দুই নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ২

ধর্ষণ

ঢাকার সাভারে পৃথকভাবে দুই নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার দিবাগত রাতে অভিযুক্তদের সাভারের ব্যাংকটাউন ও হেমায়েতপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ থানার সরকারপাড়ার সুলতান মিয়া (২৮) ও সাভারের বাদশা মিয়া (২৬)।

পুলিশ জানায়, গত ১৪ এপ্রিল রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে এক নারী (২২) তাঁর স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে সাভারের ব্যাংকটাউন এলাকায় পূর্ব পরিচিত সুলতান মিয়া নামের এক যুবকের বাসায় আসেন বাসাভাড়া নেওয়ার জন্য। পরে সুলতান ওই নারীকে নিজের বাসায় মুখ বেঁধে ধর্ষণ করেন। এ সময় ধর্ষণের বিষয়টি কাউকে জানালে তাঁকে হত্যা করে লাশ গুম করারও হুমকি দেন। পরে ওই নারী গতকাল ভয়ভীতি উপেক্ষা করে সাভার মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে অভিযুক্ত সুলতান মিয়াকে প্রধান আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। এরপর পুলিশ রাতেই ব্যাংকটাউন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

অন্যদিকে, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণের অভিযোগে বাদশা মিয়া নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাতে সাভারের হেমায়েতপুর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

আরও পড়ুন…ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে শাহবাগের পর এবার পল্টনে মামলা

পুলিশ জানায়, ওই কিশোরীর সঙ্গে বাদশা মিয়ার পরিচয় বছর খানেক আগে। ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সাভারের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে একাধিক বার ধর্ষণ করেন বাদশা। পরে ওই কিশোরী তাঁকে বিয়ের জন্য চাপ দেন। কিন্তু বাদশা মিয়া বিয়ে করতে অস্বীকার করলে গতকাল রোববার ওই কিশোরী সাভার মডেল থানায় মামলা করেন। পুলিশ রাতেই হেমায়েতপুর থেকে তাঁকে আটক করে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ভিকটিম নারীদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত দুজনকে আজ সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে।’