ঢাকায় হকার আসছেই, এটি বন্ধের উপায় নেই : আতিক

দেশে নদী ভাঙনের কারণে মানুষ জীবিকার টানে ঢাকায় চলে আসছেন। এসব মানুষ ঢাকায় এসে ফুটপাতে দোকান বসিয়ে হকারি করছেন। এভাবে ঢাকা শহরে হকার আসছেই, এটি বন্ধ করার উপায় নেই। তবে হকার সমস্যার স্থায়ী সমাধানে জাতীয় পর্যায়ে উদ্যোগ নিতে হবে বলে মনে করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

আজ মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভে এসে ‘জনতার মুখোমুখি নগরসেবক’ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মেয়র আতিক।

মেয়র বলেন, পরিবারের আয়ের জন্য মানুষ হকারি করছেন। ইচ্ছে করলে- আজ রাতেই সিটি করপোরেশনের ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে হকারদের মালামাল উঠে নিয়ে আসতে পারি। হকারদের ফল, কাপড় তুলে নিয়ে এসে মানুষের মাঝে বিলে করে দিতে পারি। কিন্তু এতেও স্থায়ী সমাধান হবে না। হকারদের সমস্যার স্থায়ী সমাধানে নগরবিদদের কাছে পরামর্শ চেয়েছি।

আতিক বলেন, ঢাকা শহরে অধিক সংখ্যক মানুষ বসবাস করেন। আর ঢাকাকে নারীবান্ধক করতে ২০২১ সালে ৪৬ হাজার লাইট লাগানো হবে। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) ৪২ হাজার লাইট লাগাতে প্রকল্প পাস করা হয়েছিল। এই অর্থ দিয়েই ৪৬ হাজার লাইট লাগানো হবে।

তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মশার ওষুধ আমদানিতে আগে সিন্ডিকেট ছিল। বর্তমানে সিন্ডিকেট ভেঙে ফেলা হয়েছে। আর সিন্ডিকেট গড়ে উঠার সুযোগ দেওয়া হবে না। এছাড়া সিটি করপোরেশনে ৪২ শতাংশ জনবল সংকট রয়েছে। এখনো সিটি করপোরেশনে দায়িত্ব থাকা অনেকে কর্মকর্তা আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করে না।