তদন্ত হলে হিন্দুদের জমি কী পরিমাণ আ.লীগ দখল করেছে বের হবে: মির্জা ফখরুল

তদন্ত হলে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের জমি-বাড়ি কী পরিমাণ আওয়ামী লীগ দখল করে নিয়েছে তা বের হবে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ’৯০ এর ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্যের’ উদ্যোগে সামরিক শাসক এইচ এম এরশাদের ক্ষমতা দখলে ২৪ মার্চ কালো দিবস’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এই অভিযোগ করেন।

সরকারকে উদ্দেশ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘একটা নিরপেক্ষ তদন্ত করে দেখুন, হিন্দু সম্প্রদায়ের ভাইদের কত জমি ও বাড়ি হয়েছে। দেখবেন বেশিরভাগই আওয়ামী লীগের লোকেরা।’

সুনামগঞ্জের শাল্লায় হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলার প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যের জাবাব দেন বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হয়েছে সুনামগঞ্জের শাল্লা থানায়। ঘটনার পর ওবায়দুল কাদের বললেন, “এটা বিএনপি করেছে।” ধরা পড়লো যুবলীগের স্বাধীন মেম্বার, আর বলছেন, বিএনপি এটার সঙ্গে জড়িত। আসলে ওরা তো প্রতি রাতে দুঃস্বপ্ন দেখে-এই বিএনপি আসলো। ওরা সারাক্ষণ বিএনপির বিরুদ্ধে বলে। সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা, সাম্প্রদায়িক বিনষ্টে যা কিছু হয়েছে সব আওয়ামী লীগের আমলে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই সরকার অত্যন্ত কৌশলী-চালাক সরকার। জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়; সম্পূর্ণ জনবিচ্ছিন্ন সরকার। স্বাধীনতার ৫০ বছরে সূবর্ণজয়ন্তী পালন করছে? আসলে পালন তো করছে মুজিব বর্ষ।’

তিনি বলেন, ‘সূবর্ণজয়ন্তী পালন করছে শুধুমাত্র আমলা, কিছুসংখ্যক তাবেদার গোষ্ঠি বাইরে থেকে কিছু মেহমানদের নিয়ে। মেহমানদের দিয়ে বলানো হচ্ছে-এক অভূতপূর্ব অলৌকিক উন্নয়ন হয়েছে, মানুষের কোনো অভাব নাই। অথচ আমাদের চালের দাম ৮০ টাকা। তেল-ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বেড়ে যাওযায় ক্রয়ক্ষমতা সাধারণ মানুষের বাইরে। গরিব আরও গরিব হচ্ছে, ধনী আরও ধনী হচ্ছে এবং মেগা প্রকল্পে শুধু মাত্র মেগা দুর্নীতি তৈরি করছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘এই সরকার শুধু ক্ষমতায় টিকে থাকবার জন্য যত রকমের অবৈধ কাজ ও মিথ্যা আছে তারা করছে। আল-জাজিরা, দি ইকোনমিস্ট ডয়েচে ভেলে যে সংবাদ পরিবেশ হয়েছে তাতে করে আপনাদের পদত্যাগ করা উচিত ছিল।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘করোনা ভীষনভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। প্রধানমন্ত্রী করোনাকে সুষ্ঠভাবে নিয়ন্ত্রণ  করার জন্য আবার নাকি পুরস্কার পেয়েছেন। অথচ সারা দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়েছে। করোনা নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রয়োজনীয় কোনো কাজই করেনি। আইসিইউ বেড নেই। গত এক বছর ধরে কী করলেন? মাস্ক পড়ার মতোও মানুষকে সচেতনতা সৃষ্টিও করতে পারলেন না?’

সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ভ্যাকসিন ছাড়া এই ভাইরাসের প্রতিষেধক হবে না। আপনারা ভ্যাকসিন নিয়েও দুর্নীতি করছেন। ২ ডলার ৩৩ সেন্ট করে একটা ভ্যাকসিন কেনার কথা সেখানে ৫ ডলার দিয়ে কিনেছেন। স্বাস্থ্য বিভাগের বড় বড় নেতা-কর্মকর্তারা মন্ত্রী কীভাবে পিপিই-ওষধ নিয়ে দুর্নীতি করেছে।’

সরকারকে উদ্দেশ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘১২ লক্ষ রোহিঙ্গাদের রাখা, তাদের ভরন- পোষণ করা, তাদেরকে সুন্দরভাবে রাখা-এটা বাংলাদেশের মতো দেশের পক্ষে কঠিন হয়ে যাচ্ছে। রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে চেষ্টা না করে-এটাকে ব্যবহার করার চেষ্টা করছেন। ভারত রোহিঙ্গা সমস্যার বিষয়ে কথা বলেনি; চীনও আমাদের পাশে দাঁড়ায়নি। কূটনৈতিক ব্যর্থতার জন্য বিশ্বকে পক্ষে আনতে পারেননি।’

ডাকসুর সাবেক ভিপি আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলনের পরিচালনায় আরও বক্তব্য দেন- সাবেক ছাত্র নেতা শামসুজ্জামান দুদু, আসাদুজ্জামান রিপন, হাবিবুর রহমান হাবিব, খায়রুল কবির খোকন, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, জহির উদ্দিন স্বপন, নাজিম উদ্দিন আলম, সাইফুদ্দিন মনি, খোন্দকার লুৎফর রহমান, আজিজুল বারী হেলাল, এবিএম মোশাররফ হোসেন, মহিলাদলের আফরোজা আব্বাস, যুবদলের সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল প্রমুখ।