নিশানকা-ডিকবেলার ব্যাটে উইন্ডিজকে শ্রীলঙ্কার চ্যালেঞ্জ

প্রথম ইনিংসে ১৬৯ রান করা শ্রীলঙ্কা অ্যান্টিগা টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩৭৫ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুড়ে দিয়েছে। লাহিরু থিরিমান্নে, ওশাডা ফার্নান্ডো ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভার হাফ সেঞ্চুরির পর পাথুম নিশানকা অভিষেক টেস্ট রাঙিয়েছেন সেঞ্চুরিতে। ফার্নান্ডোর মতো অল্পের জন্য সেঞ্চুরির নাগাল পাননি নিরোশান ডিকবেলা। তবে এই চার জনের ব্যাটে স্বাগতিকদের সামনে দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৭৬ রানের পাহাড় গড়েছে লঙ্কানরা। বড় লক্ষ্যে নেমে ১ উইকেটে ৩৪ রানে চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করেছে উইন্ডিজ।

৪ উইকেটে ২৫৫ রানে বুধবার (২৪ মার্চ) খেলা শুরু করেছিল শ্রীলঙ্কা। ৪৬ রানে ধনঞ্জয়া অপরাজিত মাঠে নেমে হাফ সেঞ্চুরি উদযাপনের দুই বল পর মাঠ ছাড়া হন। ৭৯ বলে তার ৫০ রানের ইনিংসে ছিল ৬ চার। তার সঙ্গে নিশানকার ৭০ রানের জুটি ভাঙার পর দারুণ প্রতিরোধ গড়েন ডিকবেলা। দুজনে মিলে ক্রিজ সামলান প্রায় দুই সেশন। তাদের দেড় শতাধিক রানের জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় শ্রীলঙ্কা।

২৪০ বলে ৬ চারে জীবনের প্রথম টেস্টেই সেঞ্চুরি উদযাপন করেন নিশানকা। এর পর আর ১২ বল খেলতে পেরেছেন তিনি। ১০৩ রানে রাকিম কর্নওয়ালের বলে কেমার রোচের ক্যাচ হন নিশানকা, ভাঙে ১৭৯ রানের শক্ত জুটি। সেঞ্চুরি থেকে চার রান দূরে থাকতে বিদায় নেন ডিকবেলা। ১৬৩ বলে ৮ চারে সাজানো ছিল তার ৯৬ রানের ইনিংস। ১৬ রানের ব্যবধানে শেষ ৩ উইকেট হারায় লঙ্কানরা। কর্নওয়াল পর পর লাসিথ এম্বুলদেনিয়া ও দুষ্মন্ত চামিরাকে ফিরিয়ে তাদের গুটিয়ে দেন।

কর্নওয়ালের মতো সমান সংখ্যক ৩টি করে উইকেট পান রোচ। দুটি উইকেট নেন কাইল মায়ার্স।

বড় লক্ষ্যে নেমে ষষ্ঠ ওভারে উদ্বোধনী জুটি ভাঙে উইন্ডিজের। জন ক্যাম্পবেলকে (১১) ডিকবেলার ক্যাচ বানান বিশ্ব ফার্নান্ডো। দলীয় ১২ রানে প্রথম উইকেট হারানো ক্যারিবিয়ানদের হাল ধরেছেন অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট (৮*) ও এনক্রুমাহ বোনার (১৫*)।