নেত্রকোনায় স্ত্রীর পাহারায় কিশোরীকে ধর্ষণ করল স্বামী

ধর্ষণ

নেত্রকোনার মদন উপজেলায় স্ত্রীর সহযোগিতায় প্রতিবেশী দাদার ধর্ষণের শিকার এক কিশোরী (১৩) অন্তঃসত্ত্বা বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় করা মালায় অভিযুক্ত আজিজুল ইসলামের স্ত্রী জরিনা আক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৪ এপ্রিল) রাত ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে মেয়েটির মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

রোববার (২৫ এপ্রিল) মদন থানার ওসি ফেরদৌস আলম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার রাতে মেয়েটির মা বাদী হয়ে আজিজুল ইসলাম (৫০) ও তার স্ত্রী জরিনা আক্তারকে আসামি করে মামলা করেন। শনিবার রাত ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে জরিনাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ভুক্তভোগী মেয়েটির পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি আরও জানান, আজিজুল ওই কিশোরীর সম্পর্কে দাদা হন। গত বছরের ২৫ ডিসেম্বর আজিজুলের ঘরে পান আনতে গেলে স্ত্রীর সহযোগিতায় তিনি মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন। এর পরে একই দিন রাতে মেয়েটির মুখে গামছা বেঁধে আজিজুল আবারও ধর্ষণ করে আর তার স্ত্রী পাহারা দেয় । এ ঘটনা কাউকে বললে মেয়েটিকে হত্যার হুমকিও দেয়া হয়। পরে ভুক্তভোগী মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে ঘটনাটি পরিবারের লোকজনকে জানায়। অন্যদিকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে মেয়েটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

তিনি আরও জানান, অভিযুক্ত জরিনাকে গ্রেপ্তারের পর থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তাকে নেত্রকোনা আদালতে পাঠানো হবে। আর আজিজুলকে গ্রেপ্তারের অভিযান চালানো হচ্ছে।