পুঁজিবাজারে সূচকের বড় পতন

সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস বুধবার (৩১ মার্চ) সূচকের বড় পতনের মধ্য দিয়ে পুঁজিবাজারে লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ও অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন কমেছে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, বুধবার ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৯৪ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ২৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অন্য ২ সূচকের মধ্যে ডিএসইর শরীয়াহ সূচক ১৬ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৪২ পয়েন্ট কমে যথাক্রমে ১২০৪ ও ১৯৯৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

বুধবার ডিএসইতে ৫৬০ কোটি ২৫ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। যা আগের কার্যদিবসের চেয়ে ডিএসইতে ৭৪ কোটি টাকার লেনদেন কমেছে। আগের দিন ডিএসইতে ৬৩৪ কোটি ৬৮ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছিল।

বুধবার ডিএসইতে ৩৪৮টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। এগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১১টি কোম্পানি কমেছে ২৫৭টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৮০টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের দর।

বুধবার লেনদেনের শীর্ষে থাকা ১০ প্রতিষ্ঠান হলো-বেক্সিমকো লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মা, রবি, লংকাবাংলা, স্কয়ার ফার্মা, লাফার্জহোলসিম, জিপি, রহিমা ফুড, বিএটিবিসি ও প্রিমিয়ার ব্যাংক।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ৩০১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৩৬৪ পয়েন্টে।  

এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২২৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৫টির, কমেছে ১৬৯টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির কোম্পানির শেয়ার দর।

বুধবার সিএসইতে ৩৬ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৩ কোটি টাকা কম। আগের দিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৪০ কোটি ৫৯ লাখ টাকার।