প্রথমবারের মতো চাঁদে হাঁটবেন একজন কৃষ্ণাঙ্গ, জানাল নাসা

নাসা,চাঁদ

প্রথমবারের মতো চাঁদে হাঁটতে যাচ্ছেন কোনও কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ‘নাসা’র পরবর্তী চন্দ্রাভিযান ‘মিশন আর্টেমিস’-এ তিনি চাঁদে যাবেন। সেইসঙ্গে এবারই প্রথম চাঁদের বুকে হাঁটবেন একজন নারী মহাকাশচারী।

এ তথ্য জানিয়েছেন নাসার তদারকি অ্যাডমিনিস্ট্রেটর স্টিভ জারসিজ্‌ক। তিনি বলেছেন, ‘৫ দশক পর আবারও যে চন্দ্রাভিযান শুরু করতে যাচ্ছে নাসা, তাতে চাঁদের বুকে হাঁটবেন চারজন মহাকাশচারী। তাদের মধ্যে একজন নারী। আরেকজন কৃষ্ণাঙ্গ।’আর্টেমিসসহ বিভিন্ন ধরনের মহাকাশ ও পৃথিবী সংক্রান্ত গবেষণায় আগামী অর্থবর্ষে নাসার জন্য ব্যয় বরাদ্দের প্রস্তাব শুক্রবার কংগ্রেসে পেশ করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন।

নাসার আপাতত লক্ষ্য, ২০২৪ সালের মধ্যে চাঁদে ফের মানুষ পাঠানো। 

১৯৬৯-এর জুলাই থেকে ১৯৭২-এর ডিসেম্বর পর্যন্ত নাসার বিভিন্ন মিশনে মোট ১২ জন মহাকাশচারী হেঁটেছেন চাঁদের বুকে। চাঁদের বুকে শেষ যে মহাকাশচারী হেঁটেছিলেন তার নাম ইউজিন কারনান। তিনি ছিলেন নাসার ‘অ্যাপোলো-১৭’ মিশনের কম্যান্ডার। ১৯৭২ সালের ১৪ ডিসেম্বর তিনি চাঁদে যান।

১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই প্রথম চাঁদের বুকে পা পড়েছিল মানুষের। তখন হেঁটেছিলেন নাসার ‘অ্যাপোলো-১১’ মিশনের দুই মহাকাশচারী নিল আর্মস্ট্রং এবং বাজ অলড্রিন। চাঁদে প্রথম পা ছুঁইয়েছিলেন আর্মস্ট্রং। তার ২০ মিনিট পরে পা ফেলেছিলেন অলড্রিন।