প্রস্তুতি ম্যাচে নিজেদের ‘প্রস্তুত’ করে রাখল ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল

ওয়ানডে সিরিজে হালে পানি পায়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। তিন ম্যাচেই তারা পরাজিত হয়েছে বড় ব্যবধানে। খেলোয়াড় সংকটে একদিনের ক্রিকেটের এ সিরিজে মোট ৯ খেলোয়াড়ের অভিষেক করিয়েছিল তারা। তবে দৃশ্যপট বদলে যেতে পারে টেস্ট সিরিজে। যেখানে প্রায় পূর্ণশক্তির দল নিয়েই খেলতে নামবে ক্যারিবীয়রা।

এ সিরিজের মূল লড়াইয়ে নামার আগে খেলা একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে নিজেদের ঠিকঠাক প্রস্তুত করে নিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এম এ আজিজ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে স্বাগতিক বিসিবি একাদশের বিপক্ষে দাপট দেখিয়েই তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষ করেছে ক্রেইগ ব্রাথওয়েটের দল।

গত শুক্রবার শুরু হওয়া তিনদিনের ম্যাচটি শেষ হলো আজ (রোববার)। যেখানে তিনদিনই আধিপত্য ছিল সফরকারীদের। শেষপর্যন্ত ম্যাচটি ড্র’তে শেষ হলেও, প্রস্তুতি ম্যাচ থেকে যা চেয়েছে তাই পেয়েছে ক্যারিবীয়রা। এক কথায় স্বয়ংসম্পূর্ণ প্রস্তুতি যাকে বলে। মূল সিরিজ শুরুর আগে নিজেদের প্রস্তুত করে রাখল তারা।

স্কোরকার্ড বলছে প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল অলআউট হয়েছে ২৫৭ রানে। জবাবে বিসিবি একাদশ থামে ১৬০ রানে। ফলে ৯৭ রানের লিড পায় সফরকারীরা। দ্বিতীয় ইনিংসে তারা করে ২৯১ রান। শেষদিন বিসিবি একাদশের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৮৯ রানের। ম্যাচ ড্র হওয়ার আগে ২৯ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ৬৩ রান করতে পেরেছে বিসিবি একাদশ।

শনিবার ৫ উইকেটে ১৭৯ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছিল ক্যারিবীয়রা। আজ আরও ৪১.২ ওভার খেলে ১১২ রান করতে পেরেছে তারা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮০ রান করেন এনক্রুমাহ বোনার। এছাড়া জন ক্যাম্পবেল ৬৮, জশুয়া ডা সিলভা ৪৬ ও রেয়মর রেইফার ৪৯* রান করে নিজেদের ব্যাটিং প্রস্তুতি সারেন যথাযথ।

পরে বল হাতে বিসিবি একাদশের ব্যাটসম্যানদের ওপর ছড়ি ঘোরান কেমার রোচ, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, রেয়মর রেইফাররা। ওপেনার সাইফ হাসান ৩৩ বলে ৭ রান করে আউট হন, নাইম শেখ ফেরেন রানের খাতা খোলার আগেই। মাত্র ১৪ রানে ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় বিসিবি একাদশ। দুইটি উইকেটই নেন রেইফার।

প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দিয়ে পরে আর বিপদ ঘটতে দেননি সাদমান ইসলাম ও ইয়াসির রাব্বি। দুজন মিলে ১৫.৪ ওভারে গড়েন ৪৯ রানের জুটি। দিনের ঘণ্টাখানেক বাকি থাকতেই ড্র মেনে নেয় দুই দল। সাদমান ৮১ বলে ২৩ ও ইয়াসির ৫৬ বলে ৩৩ রানে অপরাজিত ছিলেন।