প্রাথমিক শিক্ষকদের হয়রানি বন্ধে নতুন উদ্যোগ

প্রাথমিক শিক্ষকদের হয়রানি কমাতে নতুন উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এই উদ‌্যোগ বাস্তবায়িত হলে প্রয়োজনীয় কাজের জন্য শিক্ষকদের আর ঢাকামুখী হতে হবে না। নিজ জেলায় বসেই তারা জরুরি কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।  শিগগিরই এই সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হবে। 

অধিদপ্তর  সূত্রে জানা গেছে, প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিগত বিভিন্ন কাজে শিক্ষকদের রাজধানীতে আসা-যাওয়া করতে হয়। এতে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় বিঘ্ন ঘটে। অধিদপ্তর ও সচিবালয়সহ বিভিন্ন জায়গায় ছোটাছুটির কারণে শিক্ষকদের কাজও বিলম্বিত হয়। এতে তাদের ডকুমেন্ট সাবমিট ও পদোন্নতিসহ নানা কাজের জটিলতা তৈরি হয়। 

এক্ষেত্রে প্রশাসনিক ক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে জেলা কর্মকর্তাদের। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস (ডিপিইও) ও বিভাগীয় পরিচালকের কার্যালয়ের মাধ্যমে  শিক্ষকদের কাজে সহযোগিতা করা হবে। শিক্ষকরা তাদের পিতৃত্বকালীন, মাতৃত্বকালীন, আন্তঃবিদেশসহ নানা ছুটি নিতে পারবে জেলা পর্যায় থেকে। এছাড়া, বদলির আদেশ, বেতন জটিলতাসহ তাদের প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিগত সব ধরনের সমস্যা জেলা পর্যায়ে সমাধান করতে পারবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহাম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, ‘জবাবদিহিতা, স্বচ্ছতা ও কাজের গতি নিশ্চিত করতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অধিদপ্তরের ক্ষমতাকে বিকেন্দ্রীকরণ করা হয়েছে।  মাঠ-পর্যায়ের কর্মকর্তাদের ক্ষমতা বাড়ানো হয়েছে। তারা নিজেদের দায়িত্ব ঠিকমতো পালন করবেন বলে বিশ্বাস করি।’

মুহাম্মদ মনসুরুল আলম আরও বলেন, ‘এর মাধ্যমের কাজের গতিশীলতা বাড়বে।’ প্রশাসনিক কাজের গতি কমে গেলে সংশ্লিষ্টদের জবাবদিহিতা করতে হবে বলেও তিনি জানান।