বনানীতে চিরনিদ্রায় শায়িত আলী যাকের

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আলী যাকেরের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। আজ বাদ আসর জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয় তাকে।

এর আগে শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে আলী যাকেরের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে। সেখানে গার্ড অব অনার জানানো হয় তাকে। পরে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় বনানী কবরস্থানে। মৃত্যুর আগে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ায় করোনা নীতিমালা মেনেই দাফন করা হয় এ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বকে।

আলী যাকের শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) ভোর ৬টা ৪০ মিনিটে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

গেলো চার বছর ধরে ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করছিলেন যাকের আলী। সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। গেল ১৫ নভেম্বর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সিসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। 

ছোট পর্দায় ও মঞ্চে সমানভাবে জনপ্রিয় ছিলেন এই অভিনেতা। ১৯৪৪ সালের ৬ নভেম্বর চট্টগ্রামের রতনপুর ইউনিয়নে তার জন্ম। শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করার সময় আলী যাকের রেখে গেছেন স্ত্রী নাট্যজন সারা যাকের, ছেলে নাট্যাভিনেতা ইরেশ যাকের, মেয়ে রেডিও উপস্থাপক শ্রিয়া সর্বজায়াসহ অসংখ্যক ভক্ত-অনুরাগীকে।