বাংলাদেশিসহ ৩১ হাজার অবৈধ অভিবাসীকে ফেরত পাঠিয়েছে মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়ায় অবৈধভাবে থাকার অপরাধে গেলো কয়েক মাসে ৩১ হাজার ২৮২ জনকে আটকের পর নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। ফেরত পাঠানোর এ তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ, শীর্ষে রয়েছে ইন্দোনেশিয়া। সোমবার অভিবাসন বিভাগের বরাত দিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব।  

মন্ত্রী বলেন, এ বছরের জানুয়ারি থেকে পাঁচ নভেম্বর পর্যন্ত ৩১ হাজার ২৮২ জন অবৈধ অভিবাসীকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে। 

অবৈধ অভিবাসীদের সন্ধান দিতে ও অবৈধভাবে সীমান্তে অনুপ্রবেশের সঙ্গে জড়িতদের খবরাখবর জানাতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জন্য একটি হটলাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী। 

দেশে ফেরত পাঠানো অবৈধ অভিবাসীদের মধ্যে ৪ হাজার ৫৫১ জন বাংলাদেশি রয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি ১৪ হাজার ৭২ জন্য ইন্দোনেশিয়ান, ২ হাজার ৯৭৯ জন মিয়ানমার, দুই হাজার দুইশ থাইল্যান্ড ও ১ হাজার ৮৫৬ জন চীনের নাগরিক। এছাড়া বিভিন্ন দেশের আরও ৯৪৪ জনকে এই সময়ের মধ্যে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।     

প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে নিয়ন্ত্রিত জীবন ব্যবস্থায় জনগণকে অভ্যস্ত হতে হবে। তিন বাহিনীর সমন্বয়ে দেশজুড়ে ২৯৪টি স্থানে রডব্লক বসানো হয়েছে বলেও সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন মন্ত্রী। সোমবার এসব রোডব্লক থেকে ২২ জন অবৈধ অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য করোনা নিয়ন্ত্রণে গেলো মার্চ থেকে লকডাউনে রয়েছে মালয়েশিয়া। প্রথম ধাপের সংক্রমণ ভালোভাবে সামাল দিলেও দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণ ঠেকাতে বেশ বেগ পাচ্ছে দেশটির সরকার। আর করোনা সংক্রমণের মধ্যেই অবৈধ অভিবাসীদের ধরতে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে মালয়েশিয়া। সেসব অভিযানে আটকদের বেশিরভাগকেই পাঠানো হচ্ছে দেশে।