বাবাই তাদের প্রেরণা

ক্রীড়াজগতের তারকাদের কাছেও বাবা একজন আশ্রয়। বাবাই সর্বোচ্চ অনুপ্রেরণা। ইনফর্ম থাকাকালীণ বাবা যেমন আনন্দ-উচ্ছ্বাসের ভাগীদার তেমনি অফ ফর্মে কিংবা দুর্দিনে বাবাই সবচেয়ে বড় উৎসাহদাতা।

বাবা দিবসে সবার মতোই তাই তারকা খেলোয়াড়রা মেতেছেন বাবার বন্দনায়।

বাংলাদেশের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমও তাদেরই একজন। বাংলাদেশের ম্যাচে প্রায়ই তার বাবাকে দেখা যায় দর্শক গ্যালারিতে। বাবা দিবসে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে টাইগারদের মিস্টার ডিপেন্ডেবল লিখেছেন, মিরপুর, গাব্বা বা লর্ডস, আমার সুপারহিরো বাবা আমার এবং বাংলাদেশের জন্য সর্বদা মাঠে উপস্থিত থাকেন। তাঁর আশীর্বাদ সত্যিই আমাকে দেশের জন্য ভাল খেলতে অনুপ্রাণিত করে। আব্বু তোমাকে ভালোবাসি। বিশ্বজুড়ে সমস্ত পিতাকে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা।

বাবা দিবসে অনেকের আক্ষেপও আছে। বেশিদিন যারা বাবাকে পাননি তাদের কাছে দিনটি কষ্টেরও বটে। এই যেমন সাইফউদ্দিন।

জাতীয় দলের এই অলরাউন্ডার অল্প বয়সেই বাবা হারিয়েছেন। তার বাবার একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, আজ বাবা দিবস। সবসময় খুব আফসোস হয় বাবার সাথে একটা ছবিও নেই আমার। আমার পক্ষ থেকে সকল বাবাকে সালাম এবং ভালবাসা। প্রত্যেকটা সন্তান যেন তার বাবাকে প্রাপ্য সম্মানের চেয়েও বেশি মর্যাদা দেয় এই কামনাই করি।

একই অবস্থা ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলিরও। সময়ের সেরা ব্যাটসম্যানও তার বাবাকে হারিয়েছেন বয়সভিত্তিক দলে খেলার সময়ই। তবে সম্প্রতি বাবা হওয়ার স্বাদ পেয়েছেন তিনি। টুইটারে লিখেছেন, পৃথিবীব্যাপী সব বাবাকে ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা। সৃষ্টিকর্তা আমাকে যেসব উপহার দিয়েছেন তারমধ্যে সবচেয়ে আনন্দের ব্যাপার হচ্ছে বাবা হওয়ার আনন্দ। আমি আমার বাবাকে যেমন মিস করি তেমনি আমাদের সুন্দর মুহুর্তগুলো উদযাপনও করি।

বাংলাদেশের স্পিন অলরাউন্ডার মেহেদি মিরাজও সন্তানের বাবা হয়েছেন। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, বাবা হচ্ছেন মহান আল্লাহ’র আশীর্বাদ। একজন আদর্শ বাবা পাওয়া সত্যিই সৌভাগ্যের ব্যাপার। আমাদের উচিত এ জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা। আল্লাহ সব বাবাকে ইহকাল ও পরকালে সুখী করুন।

সন্তানের গর্বিত বাবা টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদও। নিজের বাবা ও সন্তানের সঙ্গে ছবি আপলোড করে সবাইকে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিনিও।