বিমানের মানসম্মত যাত্রীসেবা নিশ্চিতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হওয়া নতুন বিমানগুলোর সুরক্ষা ও মানসম্মত যাত্রীসেবা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে সদ্য যুক্ত হওয়া সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত নতুন দ্বিতীয় ও তৃতীয় ড্যাশ ৮-৪০০ ‘আকাশতরী’ ও ‘শ্বেতবলাকা’ উদ্বোধনের সময় তিনি এই নির্দেশনা দেন।

কানাডার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ডি হ্যাভিল্যান্ড বোম্বার্ডিয়ার অ্যারোস্পেস থেকে বাংলাদেশে আসে ‘শ্বেতবলাকা’। নতুন এই উড়োজাহাজের আসন সংখ্যা ৭৪। কানাডা সরকারের সঙ্গে জি-টু-জি চুক্তিতে কেনা তিনটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজের মধ্যে ২০২০ সালের ২৭ ডিসেম্বর প্রথম এবং এ বছর ২৪ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় উড়োজাহাজ বিমানের বহরে যুক্ত হয়।

বর্তমানে বিমান বহরে চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, চারটি বোয়িং ৭৮৭-৮, দুটি বোয়িং ৭৮৭-৯, ছয়টি বোয়িং ৭৩৭ এবং চারটি ড্যাশ ৮-৪০০ উড়োজাহাজ আছে। তৃতীয় ড্যাশ-৮ যুক্ত হওয়ায় বিমান বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা হলো ২১টি।

‘আকাশতরী’ ও ‘শ্বেতবলাকা’ উড়োজাহাজের উদ্বোধনের সময় শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা এর আগেও দুটি বিমান ক্রয় করেছি। এখন আবার দুটো বিমান আজ উদ্বোধন হচ্ছে। যেগুলোর নাম দিয়েছি- উড়োজাহাজ আকাশতরী ও শ্বেতবলাকা। এগুলো যেন সুন্দরভাবে সুরক্ষিত থাকে, যাত্রীসেবা যেন মানসম্মত হয়, এদিকে সবাই খেয়াল রাখবেন।’

বিমান কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা আমাদের দেশ। লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে এদেশ পেয়েছি। এ দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করা সকলের দায়িত্ব। আমাদের যাত্রীসেবা যত উন্নত করতে পারব, দেশের লাভ হবে। সেটাই আমরা চাই।’

আকাশতরী’ ও ‘শ্বেতবলাকা’ আধুনিক প্রযুক্তির উল্লেখ করে এ সময় তিনি বলেন, ‘এটা অত্যন্ত নিরাপদ ও আধুনিক প্রযুক্তির। যারা চিন্তা করেন তাদের জন্য এটা নিরাপদ হবে। চিন্তার বিষয় কিছু থাকবে না।’