বিশ্বায়নের যুগে একা এগিয়ে যাওয়া যাবে না: প্রধানমন্ত্রী

দক্ষিণ এশিয়ার অনেক মানুষ এখনও দরিদ্র উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দক্ষিণ এশিয়ায় অফুরন্ত সম্পদ রয়েছে, রয়েছে জনগণ। আমরা এগুলোর সঠিক ব্যবহার করে এগিয়ে যাবো। এখন বিশ্বায়নের যুগ একা এগিয়ে যাওয়া যাবে না। সম্মিলিতভাবে এগিয়ে যেতে হবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন উপলক্ষ্যে ‘মুজিব চিরন্তন’ দশ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা’র ৬ষ্ঠ দিনে সোমবার (২২ মার্চ) জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো উন্নত হলে এ অঞ্চলের মানুষগুলোই লাভবান হবে। আমরা নেপালের সঙ্গে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ঘটাতে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করছি। দ্বিপাক্ষিক কিংবা ত্রিপাক্ষিক যুক্তির মাধ্যমে তা বাস্তবায়ন করছি। এরইমধ্যে আমরা নেপালকে দুদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারের লক্ষ্যে সৈয়দপুর বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছি।

একইসঙ্গে দুর্যোগ মোকাবিলাতেও পারস্পারিক সহযোগিতা প্রয়োজন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনে দক্ষিণ এশিয়া কম দায়ী হলেও প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতি কমাতে সকলকেই একযোগে কাজ করতে হবে।

এসময় প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানিয়েছেন।

জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন নেপালের রাষ্ট্রপতি শ্রীমতী বিদ্যা দেবী ভান্ডারী। প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।

আলোচনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, এমপি এবং অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেছেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে শত শিল্পীর যন্ত্রসংগীত, বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গ করে বন্ধু রাষ্ট্র নেপালের পরিবেশনা, হাজার বছর ধরে (নৃত্যালেখ্য: কবিতা, গান ও নৃত্য), বাংলার ষড়ঋতু (৬০ জন শিল্পীর নৃত্য পরিবেশনা), ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ ও দেশাত্ববোধক গানের মেডলি: সেই থেকে শুরু দিন বদলের পালা (কোরিওগ্রাফি), ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর পরিবেশনা ‘বাংলার বর্ণিল সংস্কৃতি’, যাত্রাপালা ‘মা মাটি মানুষ’, শত বাউলের গানের মেডলি ও নৃত্যালেখ্য: ‘সবার উপরে মানুষ সত্য’ এবং বঙ্গবন্ধুর প্রিয় গান ও বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত গান পরিবেশনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটেছে।