বিশ্ব এখন বাংলাদেশের প্রশংসা করছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

‘রূপকল্প-২০২১’-এর মাধ্যমে একটি মধ্যম আয়ের দেশ এবং ‘রূপকল্প-২০৪১’-এর মাধ্যমে একটি উন্নত দেশ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বাংলাদেশ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত অভিঘাত মোকাবিলায় গৃহীত বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ, বিশ্বশান্তি রক্ষায় অংশগ্রহণ, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে সফলতা, বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় প্রদান এবং কোভিড মহামারির পাশাপাশি অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সচল রাখা ও রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা অব্যাহত রাখায় বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ এরই মধ্যে ভূয়সী প্রশংসা অর্জন করেছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে এম আবদুল মোমেন আজ বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কোভিড মহামারির মধ্যেও গত ২০১৯-২০ অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ অর্জিত হয়েছে। এ ছাড়া বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ লাভ করেছে।

‘আমরা বিশ্বাস করি দশম ডি-৮ শীর্ষ সম্মেলন আয়োজন এবং আগামী দুই বছর ডি-৮-এর চেয়ার-এর দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে বাংলাদেশের উন্নয়নের এসব অভাবনীয় সাফল্যগাঁথা বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার সুযোগ সৃষ্টি হবে। সেইসঙ্গে ডি-৮-এর চেয়ার হিসেবে বাংলাদেশ, অন্যান্য ডি-৮-ভুক্ত দেশগুলোর সহযোগিতায় ডি-৮-এর অব্যবহৃত সম্ভাবনাগুলোকে কাজে লাগিয়ে এ অর্থনৈতিক উন্নয়ন সহযোগিতাকে এক নতুন মাত্রায় উন্নীত করতেও সক্ষম হবে। এ ছাড়াও, ডি-৮ সিসিআই-এর সভাপতি হিসেবে অন্যান্য ডি-৮-ভুক্ত দেশগুলো থেকে বাংলাদেশে ব্যবসা ও বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতেও বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

‘বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো ডি-৮ যুব সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি, এ যুব সম্মেলনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বাংলাদেশের তরুণ উদ্যোক্তাদের সঙ্গে ডি-৮ সদস্যভুক্ত অন্যান্য দেশের তরুণ উদ্যোক্তাদের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন এবং অভিজ্ঞতা বিনিময় হবে। আমরা প্রত্যাশা করছি, এ সম্মেলনে অর্জিত অভিজ্ঞতা তরুণ বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের নতুন উদ্ভাবনী চিন্তা এবং উদ্যোগ গ্রহণে ভবিষ্যতে সহায়তা করবে।’