ভারতের কোভিড পরিস্থিতিতে সাহায্যের আশ্বাস আমেরিকার

ভারত

করোনার সংক্রমণ প্রতিনিয়ত বাড়ছে ভারতে, তাতে অক্সিজেন অভাবে ধুঁকছে দেশটি। সেই প্রেক্ষাপটে জরুরি চিকিৎসা সামগ্রী, ওষুধ রফতানিতে বিধিনিষেধ তোলেনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ নিয়ে বিশ্বজুড়ে ঝড় শুরু হলে টনক নড়ে বাইডেন প্রশাসনের। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান যে, ভারতের পরিস্থিতি নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন। সেই সঙ্গে বাড়তি সাহায্যের আশ্বাসও দেন তিনি।

টুইটবার্তায় মার্কিন পররাষ্টমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন লেখেন, ‘ভারতে করোনার এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে আমরা তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছি। ভারতীয় সরকারের সঙ্গে একযোগে কাজ করার দিকে এগোচ্ছি। ভারতের স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সকলের জন্য আমরা ক্রমাগত বাড়তি সাহায্য দিয়ে যাব।’

এরপর হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভ্যানও ভারতের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি লেখেন, ‘ভারতে গুরুতর কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। আমরা আমাদের বন্ধুবান্ধব এবং অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে ভারতের এই মহামারীর সঙ্গে লড়াই করার জন্য আরও সরবরাহ এবং সহায়তা জোগানোর জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি।’

এদিকে শনিবার বাইডেন প্রশাসনের কাছে ভারতে ভয়াবহ পরিস্থিতিতে সাহায্য করার আবেদন জানান ইন্দো-আমেরিকান ব্যবসায়ী মহল। এর পরেই মূলত টনক নড়ে বাইডেন প্রশাসনের। 

আরও পড়ুন…‘ভারত তুমি সেরে ওঠো, পাকিস্তান তোমার সঙ্গে আছে’

মার্কিন চেম্বার অফ কমার্সের আন্তর্জাতিক লেনদেন বিষয়ক প্রধান মাইরন ব্রিলিয়ান্ট এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ‘ভারতসহ গোটা বিশ্বে করোনা অতিমারীর মৃত্যুর মিছিল চলছে। এই প্রেক্ষাপটে মার্কিন বাণিজ্য মহল সরকারের কাছে আবেদন করছে, মজুত থাকা লাখ লাখ অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের ডোজ এবং অন্যান্য জরুরি চিকিৎসা সামগ্রী দ্রুত ভারত, ব্রাজিল ও অন্য দেশগুলোতে রফতানি করা হোক। 

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৬৯১ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ১ কোটি ৬৯ লাখ ৬০ হাজার ১৭২ জন। আর দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ২৭৬৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভারতে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ১ লাখ ৯২ হাজার ৩১১ জনে।