ভারতে বাড়ছে সংক্রমণ, সরকারকে দুষলেন সোনিয়া গান্ধী

সোনিয়া গান্ধী

ভারতজুড়ে ভয়ঙ্কর আকার নিতে শুরু করেছে করোনা। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সোনিয়া গান্ধী

তিনি অভিযোগ তোলেন, দেশের কেন্দ্রীয় সরকার করোনা মোকাবিলায় বিরোধীদের পরামর্শ শোনার বদলে আক্রমণাত্মক আচরণ করে চলেছে।

সোনিয়া কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি আবেদন রেখে বলেন, করোনা মোকাবিলার ক্ষেত্রে অযথা বিরোধীদের দিকে আঙ্গুল তোলার পরিবর্তে গঠনমূলক কর্মসূচী গ্রহণ করুন। দেশে এক বছরের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও করোনা সংক্রমণ থেকে ভারত মুক্তি পাওয়ার বদলে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে। এজন্য মোদি সরকারকে কাঠগড়ায় তোলেন তিনি।

সোনিয়া বলেন, গত বছরের থেকেও করোনা সংক্রমণে বর্তমানে চরম খারাপ পরিস্থিতির সম্মুখীন গোটা দেশ। এই ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে দেশের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোসহ অন্যান্য সমস্যা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নীরবতা প্রশ্ন তুলে দিচ্ছে।

সোনিয়া গান্ধীর পাশাপাশি দেশের বর্তমান করোনা সঙ্কট নিয়ে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীও। তিনি বলেন, নির্দিষ্ট কৌশলের অভাব ও কেন্দ্রের মোদি সরকারের উদ্দেশ্যহীনতার জন্য গোটা দেশ আজ চরম বিপর্যয়ের সম্মুখীন। এদিকে যতো দিন যাচ্ছে ততোই দেশে বেড়ে চলেছে করোনা সংক্রমণ। দেখা দিয়েছে অক্সিজেনের ঘাটতিও।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৬১ হাজার ৫০০ জন। করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৫০১ জনের। এই নিয়ে ভারতে এখনও পর্যন্ত ১ কোটি ৪৭ লক্ষ ৮৮ হাজার ১০৯ জন করোনা আক্রান্ত হলেন। মৃতের সংখ্যা পৌঁছায় ১ লক্ষ ৭৭ হাজার ১৫০ জনে।

আরও পড়ুন…ইন্ডিয়ানাপলিসের ঘটনাকে ‘জাতীয় লজ্জা’ বললেন বাইডেন

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লক্ষ ৩৮ হাজার ৪২৩ জন। এখনও পর্যন্ত ১ কোটি ২৮ লক্ষ ৯ হাজার ৬৪৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। অ্যাক্টিভ কেসের সংখ্যা ১৮ লক্ষ ১ হাজার ৩১৬ জন।

এদিকে করোনা সংক্রমণ রোধে শুরু হয়েছে টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া। এখন ও পর্যন্ত দেশের মোট ১২ কোটি ২৬ লক্ষ ২২ হাজার ৫৯০ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে। চলছে এখনও টিকা দেওয়ার প্রক্রিয়া। কিন্ত তাতেও সংক্রমণে লাগাম টানা যাচ্ছে না। আর এমন পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে মুখ খুললেন সোনিয়া গান্ধী।