মাতৃত্বকালীন ছুটির ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত ফিফার

মহিলা ফুটবলারদের জন্য ঐতিহাসিক এক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ব ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। মহিলা ফুটবলাররা যাতে ১৪ সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন ছুটি পান সে ব্যাপারে নতুন নিয়ম করেছে ফিফা কাউন্সিল। এই নিয়ম অনুযায়ী সন্তান জন্মের পরে কমপক্ষে ৮ সপ্তাহ বাধ্যতামূলক ছুটি দিতে হবে সংশ্লিষ্টকে।

মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষ হলে সেই মহিলা ফুটবলারকে ফের ক্লাবে বহাল করতে হবে। সেই সঙ্গে তাঁদের চিকিৎসার বন্দোবস্ত যাতে ক্লাবে থাকে, সে দিকেও নজর দিতে বলা হয়েছে।

ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো বলেছেন, ‘ফুটবলাররাই আসল। তারা যাতে উন্নতি করতে পারেন, সে দিকে নজর দেওয়াই আমাদের আসল উদ্দেশ্য। মহিলা ফুটবলারদের ক্যারিয়ার আরও স্থিতিশীল করার জন্য আমাদেরই উদ্যোগী হতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ওদের মাতৃত্বকালীন ছুটির দরকার হলে চিন্তার কোনও ব্যাপারই নেই। ওরা ছুটি নিতেই পারবে। নারী ফুটবলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে এসব দিকে আমাদের নজর দিতেই হবে।’

ফিফার নতুন নিয়ম অনুযায়ী, ১৪ সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন ছুটি যারা নেবেন, তারা বেতনের (চুক্তি অনুযায়ী) দুই-তৃতীয়াংশ অর্থ পাবেন। তাছাড়া গর্ভধারণের জন্য কোনও মহিলা ফুটবলার যাতে সমস্যায় না পড়েন, সে দিকেও কড়া নজর রাখবে বলে জানিয়েছে ফিফা।

ফিফা কাউন্সিল যেসব নতুন নিয়ম কার্যকর করছে, তাতে উপকৃত হবেন কোচরাও। ফিফা প্রেসিডেন্ট ইনফান্তিনো বলেছেন, ‘ফুটবলের উন্নয়ন এবং প্লেয়ারদের অনুপ্রাণিত করার কাজটা করে থাকেন কোচরাই। তাদের চাকরির নিরাপত্তা থাকা দরকার। কোচদের সুরক্ষার জন্য ন্যূনতম একটা মান বজায় রাখতে হবে আমাদেরই।’