মেঘের ঘনঘটা শেষে রাজধানীতে ঝড়োবৃষ্টি

সকাল গড়িয়ে বেলা বাড়ল কিন্তু তাপ বাড়েনি। দুপুরের পর থেকে রাজধানীর আকাশে মেঘের ঘনঘটা। রোদের দেখা মিলছিল না। পরক্ষণেই আবার মনে হচ্ছিল, এই বুঝি রোদের দেখা মিলবে। কিন্তু রোদের দেখা তো মিলেইনি; বরং বিকেলে শহরে ঝরেছে স্বস্তির বৃষ্টি।

আজ শনিবার বিকেল থেকে দেশের কোথাও কোথাও গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। কোথাও আবার ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টিরও দেখা মিলেছে। আর এ কারণেই দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, দুপুর ১টা থেকে রাত ১টা  পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরসমূহকে এক নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বলা হয়েছে, পাবনা, রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, ঢাকা, ফরিদপুর, কুমিল্লা, নোয়াখালী, খুলনা, বরিশাল ও পটুয়াখালী অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে  ঘণ্টায়  ৪৫ থেকে ৬০  কিলোমিটার বেগে  বৃষ্টি  অথবা  বজ্রবৃষ্টিসহ  অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে  পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ কামরুল হোসেন বলেন, অনেক সময় মেঘ মেঘ পরিবেশ থাকার পর ঢাকায় বৃষ্টি হয়েছে। হালকা ঝড়ও হয়েছে। এ ছাড়া দেশের কোথাও কোথাও আবার অস্থায়ী দমকা হাওয়ার সঙ্গে বজ্রবৃষ্টিও হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, বর্তমানে লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ অবস্থান করছে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে। আগামীকাল নাগাদ আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। বৃষ্টির পর তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে।

এদিকে আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ বিকেলে বলেন, ঢাকাসহ কুমিল্লা, চাঁদপুর, ফরিদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, গাজীপুর ও মাদারীপুরে ঝড়ো বৃষ্টি হয়েছে। এই বৃষ্টিকে আমরা কালবৈশাখীর প্রথম বৃষ্টি বলছি। এসব এলাকায় ঘণ্টায় ২০ থেকে ৩০ কিলোমিটার গতিতে বাতাস বইছে। তবে কোথাও কোথাও ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার গতিতেও ঝড় বইছে। এখন থেকে এ ধরনের ঝড়-বৃষ্টি মাঝেমধ্যেই দেখা যাবে।’