মৌলভীবাজার সদরে মধ্যরাতে ঘরের দরজা ভেঙে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে গণধর্ষণ

মৌলভীবাজার সদরে মধ্যরাতে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে চারজন মিলে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার মৌলভীবাজার সদর মডেল থানায় দুজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও দুজনকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা করেন ভুক্তভোগী। অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল রাতেই সদর উপজেলার চাঁদনীঘাট ইউনিয়ন থেকে অজুদ মিয়া নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার রাতে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার গুজারাই গ্রামের মছব্বির মিয়ার বস্তিতে মধ্যরাতে দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে অভিযুক্ত চারজন। এ সময় ভুক্তভোগীর স্বামী ঘরে ছিলেন না। পরে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত চার ব্যক্তি।

ভুক্তভোগী বর্তমানে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক চিকিৎসক পার্থ সারথি দত্ত বলেন, ‘ওই গৃহবধূর প্রয়োজনীয় পরীক্ষা হয়েছে। সব পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়ার পর এ বিষয়ে মন্তব্য করা যাবে।’

মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ইয়াছিনুল হক বলেন, ‘ওই নারীর অভিযোগ এবং বক্তব্য অনুযায়ী আইনগত পদক্ষেপ নিয়ে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিটা পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও যাচাই-বাছাই চলছে।’