রাজারবাগ পীরের বিরুদ্ধে উগ্রবাদ ছড়ানোর আশঙ্কা করছে পুলিশ

ঢাকা: প্রতিবেদনে পুলিশ জানিয়েছে, রাজারবাগের পীর ও তার সহযোগীরা কোরআন ও হাদিসের খণ্ডিত ব্যাখ্যা দিয়ে দেশের ধর্মভীরু মানুষকে ভুলপথে পরিচালনা করে ধর্মের নামে মানুষ হত্যা ও তথাকথিত জিহাদকে উসকে দিচ্ছে।

রাজধানীতে রাজারবাগের পীর ও তার মুরিদদের ব্যাপারে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম (সিটিটিসি) ইউনিট হাইকোর্টে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন।

প্রতিবেদনে পুলিশ জানিয়েছে, রাজারবাগের পীর ও তার সহযোগীরা কোরআন ও হাদিসের খণ্ডিত ব্যাখ্যা দিয়ে দেশের ধর্মভীরু মানুষকে ভুলপথে পরিচালনা করে ধর্মের নামে মানুষ হত্যা ও তথাকথিত জিহাদকে উসকে দিচ্ছে।

তাদের কর্মকাণ্ড জঙ্গি কার্যক্রমের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ হওয়ায় তাদের কার্যক্রমে উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।’

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে দায়ের করা ৪৯ মামলার বাদীদের খুঁজতে ব্যবসায়ী একরামুল আহসান কাঞ্চনের এবং অন্য ৮ জনের দায়ের করা রিটে দেওয়া আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম (সিটিটিসি) ইউনিট এমন প্রতিবেদন জমা দেয় আদালতে।

আজ রোববার (৫ ডিসেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে এ বিষয়ে করা রিট আবেদনের শুনানি উপস্থাপন করা হয়।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির ও এমদাদুল হক বশির।

অপরদিকে রাজারবাগ দরবারের পীর দিল্লুর রহমানসহ তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে করা মামলাসংক্রান্ত নথি পাওয়া যাচ্ছে না- এমন তথ্য জানানোর পর দ্রুত তা খুঁজে বের করার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

প্রভাতনিউজ/এবিএস