রানের পাহাড় গড়ে বাংলাদেশের ইনিংস ঘোষণা

বাংলাদেশ

তৃতীয় দিনের লক্ষ্য ছিল যত দ্রুত সম্ভব রানের গতি বাড়িয়ে নিয়ে ইনিংস ঘোষণা করা। সে পথেই হেঁটেছে বাংলাদেশ। প্রথম সেশনে ব্যাট করতে নেমে দেড় ঘণ্টা ব্যাটিং করে স্কোর বোর্ডে পাঁচ শতাধিক রান তুলেছে সফরকারীরা। তৃতীয় দিন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের হাফসেঞ্চুরিতে ৫৪১ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক।

আজ শুক্রবার প্রথম সেশন পর্যন্ত ৫৪১ রান তুলতে বাংলাদেশ হারিয়েছে সাত উইকেট। উইকেটে ৬৮ রানে অপরাজিত ছিলেন মুশফিক ও ৬ রানে অপরাজিত ছিলেন তাসকিন আহমেদ। তৃতীয় দিন হাফসেঞ্চুরি করে আউট হন লিটন দাস। মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম উইকেটে থিতু হতে পারেননি।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল চার উইকেটে ৪৭৪ রান। দিনের খেলা ২৫ ওভারের মতো বাকি থাকতে খেলা শেষ হয়েছিল।

প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি পেয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুমিনুল হক। সেঞ্চুরির পাশাপাশি নিজেদের ঝুলিতে নতুন রেকর্ড পুরেছেন মুমিনুল ও শান্ত। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পাল্লেকেলে টেস্টের প্রথম ইনিংসে রেকর্ড বইয়ে নাম লিখিয়েছে এই জুটি। দুজন মিলে গড়েছেন ২৪২ রানের জুটি। তৃতীয় উইকেটে এটাই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ জুটি। এর আগে সর্বোচ্চ ছুটি ছিল ২৩৬ রানের। সেই জুটিতেও অবশ্য নাম ছিল মুমিনুলের। সঙ্গে ছিলেন মুশফিকুর রহিম। ২০১৮ সালে এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই আগের রেকর্ড জুটি গড়েন মুমিনুল-মুশফিক।

গত বুধবার টেস্টের প্রথম দিন নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নেন নাজমুল হোসেন শান্ত। দ্বিতীয় দিন দেড়শ হাঁকিয়ে সম্ভাবনা এগিয়ে নেন ডাবল সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ডাবল সেঞ্চুরির মাইলফলক ছোঁয়া হলো না। ১৬৩ রানে থামল শান্ত এক্সপ্রেস। একদম টেস্ট মেজাজে খেলা শান্ত এই রান তুলতে খেলেছেন ৩৭৮ বল। তাঁর ইনিংসটি সাজানো ছিল ১৭টি বাউন্ডারি ও এক ছক্কায়।

কাল দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনে সেঞ্চুরি হাঁকালেন মুমিনুল। লাঞ্চ বিরতির আগে ধনঞ্জয়ার বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারের ১১তম সেঞ্চুরি তুলে নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ২২৪ বলে শতক স্পর্শ করেন তিনি।

অফ স্পিনার ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার অফ স্টাম্পের একটু বাইরের বল কাট করে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্ট দিয়ে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটান মুমিনুল। ক্যারিয়ারের অষ্টম বছরে এসে বিদেশে প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ পেলেন মুমিনুল। সেঞ্চুরির পর শেষ পর্যন্ত ১২৭ রানে থামেন অধিনায়ক। ৩০৪ বলে তাঁর ইনিংসে ছিল ১১টি বাউন্ডারি। এরপর জুটি বেঁধে দিনের বাকি অংশ পার করেন মুশফিক ও লিটন।

পাল্লেকেলে টেস্টের প্রথম দিন দারুণভাবে পার করে বাংলাদেশ। শান্তর সেঞ্চুরি এবং তামিম ইকবালের বড় ইনিংসে ভর করে প্রথম দিনই তিনশ ছাড়ানো ইনিংস গড়ে সফরকারীরা। ওইদিন বড় দুটি জুটির একটিতে শান্তর সঙ্গী তামিম, আরেকটি মুমিনুল হক। চোখধাঁধানো সব শটের প্রদর্শনী মেলে ধরে তামিম আউট হয়ে যান ৯০ রান করে। দেশের বাইরে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির আশায় থাকা মুমিনুল দিন শেষে অপরাজিত ছিলেন ৬৪ রানে। এরপর কাল প্রথম সেশনেই নিজের লক্ষ্যে পৌঁছে যান বাংলাদেশ অধিনায়ক।