রিজওয়ান-ফাহিম ঝড়ে উড়ে গেল প্রোটিয়ারা

পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা

রিজওয়ান ও ফাহিম আশরাফের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড গড়েছে পাকিস্তান। শনিবার চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৪ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়েছে সফরকারীরা। দুই অর্ধশতকে ১৮৮ রান সংগ্রহ করেছিল প্রোটিয়ারা।

জোহানেসবার্গের রুদ্ধশ্বাস এ ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। উড়ন্ত সূচনা করেন জানেমান মালান ও এইডেন মার্করাম। কিন্তু ১৬ বলে ২৪ রান করেই বিদায় নেন মালান। ভিয়ান লুবেকে ফিরিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় উইকেট শিকার করেন হাসান আলি। ফলে ৩৬ রানেই ২ রানে হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা।

তৃতীয় উইকেটে ৬২ রানের জুটি গড়েন মার্করাম ও হেনরিখ ক্লাসেন। অর্ধশতক হাঁকিয়ে মোহাম্মদ নওয়াজের শিকার হওয়ার আগে ৩১ বলে ৫১ রান করেন প্রোটিয়া ওপেনার। ৮টি চারের সঙ্গে ১টি ছক্কাও  হাঁকান তিনি। অর্ধশতক তুলে নেন ক্লাসেনও। ২৮ বলে ৫০ রান করেন এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করা ক্লাসেনের ইনিংসে ছিল ৪টি ছক্কা ও ২টি চারের মার। বিদায় নেওয়ার আগে পাইট ফন বিওর্নের সাথে গড়েন ৬১ রানের আরেকটি মূল্যবান জুটি।

২৪ বলে ৩৪ করে আউট হন পাইট। যাতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৮৮ সংগ্রহ পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। পাকিস্তানের পক্ষে মোহাম্মদ নওয়াজ ও হাসান আলি ২টি করে উইকেট শিকার করেন।

আরও পড়ুন…চেন্নাইকে হেসেখেলেই হারালো দিল্লী

জবাব দিতে নেমে ধীরস্থির শুরু করলেও সময় মতোই ব্যাটে ঝড় তোলেন ওপেনিংয়ে নামা মোহাম্মদ রিজওয়ান। অন্যপ্রান্তে স্বভাবসুলভ ব্যাটিংয়ে ১৪ বলে ১৪ রান করে ফেরেন অধিনায়ক বাবর আজম। ওয়ানডেতে ব্যাটে ফুলঝুরি ছোটানো ফখর জামান নাটকীয়ভাবে টি-টোয়েন্টি দলে ডাক পেয়ে ফেরেন ১৯ বলে ২৭ রান করে। ততক্ষণে পাকিস্তান সংগ্রহ করে ফেলে ১০ ওভারে ৮৬ রান।

এরপর মোহাম্মদ হাফিজ (১৩), হায়দার আলি (১৪) ও নওয়াজ (০) দ্রুত বিদায় নিলে ১৩২ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় পাকিস্তান। তবে ফাহিম আশরাফের তাণ্ডবে ম্যাচের লাগাম নিজেদের পক্ষে নিয়ে নেয় পাকিস্তান।

শেষ ওভারে পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ১১ রান। প্রথম বলেই জর্জ লিন্ডের হাত গলে ফাহিমের ক্যাচ পড়ে গেলেও পরের বলেই লিজার্ড উইলিয়ামসের বলে বোল্ড হন ফাহিম। দলকে জয়ের বন্দরে রেখে তিনি ফেরেন ১৪ বলে ৩০ রান করে। তার টর্নেডো ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ১টি ছক্কা।

হাসান আলি নেমেই প্রথম বলে চার হাঁকিয়ে চাপকে মুক্তি দেন। পরের দুই বলে ৫ রান সংগ্রহ করে এক বল বাকি থাকতেই পাকিস্তানকে জয় এনে দেন এই টেল এন্ডার। অন্যপ্রান্তে ম্যাচ সেরা রিজওয়ান অপরাজিত থাকেন ৫০ বলে ৭৪ রান করে। তার ইনিংসে ছিল ৯টি চার ও ২টি ছক্কার মার।

ফলে পাকিস্তান পায় ৪ উইকেটের জয়। পাশাপাশি গড়ে সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ডও। এই জয়ে চার ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল সফরকারীরা। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সোমবার (১২ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়।