শিশুদের ওপর যৌন নির্যাতন, ধর্মযাজকের জেল

পূর্ব তিমুরে শিশুদের ওপর যৌন নির্যাতন চালানোর কারণে সাবেক একজন ধর্মযাজক রিচার্ড ডাসবাসকে (৮৪) মঙ্গলবার ১২ বছরের জেল দেয়া হয়েছে।

নিজের অধীনে থাকা এতিম এবং বিপন্ন বালিকাদের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে তাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেছে বেশ কিছু এতিম এবং অনগ্রসর বালিকা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা।

পূর্ব তিমুর একটি ক্যাথলিক দেশ। সেখানে যৌন নির্যাতনের দায়ে একজন ধর্মযাজকের বিরুদ্ধে শাস্তির ঘটনা এটাই প্রথম।

১৯৯০এর দশকের শুরুতে এতিম এবং বিপন্ন শিশুদের জন্য তোপু হোনিস নামে একটি আশ্রয় প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ওই যাজক। সেখানে আশ্রিতাদের ১৪ বছরের কম বয়সী শিশুদের ওপর যৌনতার ১৪টি অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

একটি অভিযোগ আনা হয়েছে শিশু পর্নোগ্রাফির এবং সহিংসতার।এ মামলার বিচারকাজ শুরু হয় রাজধানী দিলি থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার পশ্চিমে ওকুসে শহরে গত ফেব্রুয়ারি।

আজ মঙ্গলবার ( ২১ ডিসেম্বর) এর চূড়ান্ত রায় ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিন আদালতের শুনানিতে জনগণকে উপস্থিত থাকতে দেয়া হয়নি। এর আগে গত মাসে এ মামলার সর্বশেষ শুনানি হয়।

মঙ্গলবারের রায় সম্পর্কে ডাচবাচের আইনজীবী মিগুয়েল ফারিয়া বলেছেন, তিনি এই শাস্তি মেনে নেবেন না। বিবাদীর সঙ্গে সহযোগিতা করে যাবেন।

বিবাদী, তার পরিবারের পক্ষে তিনি রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন। ফারিয়া বলেছেন, চারজন ভিকটিমের সাক্ষ্যের ওপর ভিত্তি করে এই রায় দেয়া হয়েছে।

কিন্তু অন্য কোনো সাক্ষ্য আমলে নেয়া হয়নি। পক্ষান্তরে ভিকটিমদের পক্ষের আইনজীবীরা এই রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তারাও আপিল করার কথা বলেছেন।

তাদের দাবি, ডাচবাচ যে ভয়াবহ অপরাধ করেছে তাতে তার সর্বোচ্চ ৩০ বছর পর্যন্ত শাস্তি হওয়া উচিত। যে ইতিহাস তিনি লিখিয়েছেন তা পুরো জাতির জন্য তিক্ত।

প্রভাতনিউজ/এনজে