সবুজ গালিচায় ফিরলেও ফিটনেস টেস্ট হয়নি সাকিবের

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ দিয়ে ২২ গজে ফিরছেন সাকিব আল হাসান। দীর্ঘ এক বছর নিষিদ্ধ থাকার পর সোমবার প্রথমবারের মতো মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে উপস্থিত হয়েছিলেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার। এদিন ফিটনেস টেস্ট করার কথা ছিল। যদিও তা বুধবার করা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। 

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আয়োজিত পাঁচ দলের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের আগে ১১৩ ক্রিকেটারের ফিটনেস টেস্ট নেয়া হচ্ছে। এদিন সকাল সাড়ে নয়টার দিকে রিপোর্টিং টাইম থাকলেও এক ঘণ্টা আগেই উপস্থিত হন সাকিব। 
তিনিসহ প্রথম দিন ৮০ জনের টেস্ট হওয়ার কথা ছিল। যদিও শেষ পর্যন্ত তা হয়নি।

বিষয়টি নিয়ে ফিটনেস ট্রেনার তুষার কান্তি হাওলাদার জানান ক্রিকেটারদের করোনা টেস্ট করা হয়নি। তাই সাকিবকে আলাদা করে বিপ টেস্ট করানো হবে।

তিনি বলেন, যাদের সঙ্গে সাকিবের বিপ টেস্ট হওয়ার কথা, তাদের কারও কোভিড টেস্ট করানো হয়নি। দীর্ঘদিন পর ফিরেছেন। ফিজিও-ট্রেনাররা তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবেন। এজন্যও একটু সময় লাগবে।

অন্যদিকে সাকিবের ফেরা নিয়ে বেশ আশাবাদী মিনহাজুল আবেদিন।

আজকে শুরু করছে নিষেধাজ্ঞার পরে। ফিটনেসটাও দেখা হবে, বুধবারে ও ফিটনেস টেস্ট দিবে। তাড়াতাড়ি তো সবকিছু পাওয়া যায় না। আস্তে আস্তেই সবকিছু হবে। তার ব্যাপক অভিজ্ঞতা, বিশ্বের সেরা ক্রিকেটার। আশাকরি খুব তাড়াতাড়িই মানিয়ে নিতে পারবে। টুর্নামেন্টে ভালোই খেলবেন আশা করি। বলেন প্রধান নির্বাচক।

আগামী চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ। আগামী ১২ নভেম্বর রাজধানীর একটি হোটেলে হবে প্লেয়ার্স ড্রাফট।