সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা হলেই প্রতিরোধ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

দেশের সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা হলেই তা প্রতিরোধ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সুনামগঞ্জের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে আর ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) রাজধানীতে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, হামলার শিকার যারা তারা মামলা করে কি না-সে জন্য সুনামগঞ্জের এসপি অপেক্ষা করছিল, পরে তারা না করায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে। এ মামলা চলবে, আর যারা ক্ষতিগ্রস্ত বেশি হয়েছে সরকার তাদের ব্যবস্থা অবশ্যই করবে। এটা অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ, এখানে কেউ সাম্প্রদায়িক চেতনার উসকানি দিয়ে রক্ষা পাবে এমনটা হবে না।

এদিকে সুনামগঞ্জের শাল্লায় হামলা-লুটপাটের ২৪ ঘণ্টা পার হলেও মামলা ও আটক করা হয়নি কাউকে। ঘটনার পর থেকে চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন নোয়াগাঁও গ্রামবাসীর।

এরই মধ্যে সকালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন পুলিশ ও র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এ সময় হামলার শিকার ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন তারা।

ফেসবুকে পোস্টকে কেন্দ্র করে সুনামগঞ্জে হিন্দুবাড়িতে হামলার ঘটনায় এলাকা পরিদর্শন করে র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ্ আল মামুন বলেন, সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের ছাড় দেওয়া হবে না। শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রাম পরিদর্শন শেষে বেলা ১১টায় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দেশ থেকে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ লড়াই করে হটিয়ে দিয়েছে।

নোয়াগাঁওয়ে হিন্দুদের ঘরবাড়িতে হামলার ঘটনায় জড়িতদের ছাড় দেওয়া হবে না। যারা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির চেষ্টা করছে তাদের অতিদ্রুত আইনের আওয়তায় এনে বিচার নিশ্চিত করা হবে। যাতে আগামীতে এ ধরনের আর কোনো ঘটনা না ঘটে বলে জানান র‌্যাব কর্মকর্তা।

এদিকে হামলার পর গতরাতে র‌্যাবের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়। হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হকের সমালোচনা করে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় বুধবার সকালে শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে হিন্দুপল্লিতে হামলা চালায় তার কট্টরপন্থি সমর্থকরা। এ সময় ৮৮টি বাড়িতে ভাঙচুর ও লুট করে বলে জানান স্থানীয়রা। এতে সাধারণ মানুষের মনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।