সানলাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড – ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির ৫ বছরের বীমা চুক্তি সম্পাদিত

সানলাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড এর সাথে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির ৫ বছরের বীমা চুক্তি সম্পাদিত হলো আজ।

চুক্তির আওতায় প্রিমিয়াম হিসেবে কোম্পানীকে ১৫০০,০০০ (পনের লাখ) টাকা প্রদান করা হয়। সাগর রুনী মিলনায়তনে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে এই চুক্তি স্বাক্ষর সম্পাদিত হয়। বর্তমান কমিটি এই চুক্তি সম্পাদনের মাধ্যমে ৩৬৫ দিনের ইনিংস শেষ করছে।

নতুন চুক্তির আওতায় কোন সদস্য মারা গেলে তার পরিবার বীমা কোম্পানী থেকেই বীমা দাবির তিন লাখ টাকা পাবেন। পরবর্তী কমিটিকে কোন টাকা দিতে হবেনা।

এছাড়া রোগের কাভারেজ বেড়েছে ৮টি থেকে ১৩টিতে। বেড়েছে বীমা দাবির টাকাও।

চুক্তির আওতায় সদস্যরা যেসব সুবিধা পাবেন:

১. মৃত্যুবরণ করলে তিন লাখ টাকা পাবেন, আগে পেতেন ২ লাখ টাকা। দুর্ঘটনায় মৃত্যু হলে চার লাখ টাকা পাবেন, আগেও তাই ছিল।

২.প্রধান প্রধান রোগ আগে ছিল ৮টি। বর্তমানে হবে ১৩টি। নতুন করে হাড় ভাঙ্গা, কিডনি ও ফুসফুসের সর্বশেষ স্তরের স্থলে যেকোন রোগ, ব্রেইন, কোভিড-১৯ সংযোজন (পরিস্থিতি ক্রিটিকাল হলে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা) করা হয়েছে। প্রধান রোগের ক্ষেত্রে আগে সর্বোচ্চ ৭৫ হাজার টাকা পাওয়া যেত, এখন তা ৮০ হাজার টাকায় উন্নিত করা হয়েছে।

৩. অঙ্গহানি জনিত দাবির ক্ষেত্রে আগে দুই হাত বা দুই পা সম্পূর্ণ নষ্ট হলে দেয়া হত দেড় লাখ টাকা, এখন থেকে পাবেন দুই লাখ টাকা। এক হাত-এক পা সম্পূর্ণ নষ্ট হলে আগে ৫০ হাজার টাকা পাওয়া যেত এখন পাওয়া যাবে এক লাখ টাকা।

৪. আগের মেয়াদে জনপ্রতি বীমার হার ছিল ১২১৬ টাকা। বর্তমানে হবে ৯২৫ টাকা।

৫. সর্বশেষ বছরে বার্ষিক মোট প্রিমিয়াম দেয়া হয় ১৫ লাখ ৯৮ হাজার ৩১০ টাকা। এ বছর বার্ষিক প্রিমিয়াম ১৪ লাখ ৯০ হাজার টাকা।

৬. আগে ৫ বছর মেয়াদ শেষে একবার লাভের ৪০ শতাংশ ডিআরইউ পেত, এখন থেকে ৫০ শতাংশ পাওয়া যাবে এবং প্রতি বছর শেষে এ লাভ পাওয়া যাবে।