স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানাবে বিএনপি

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানাবে বিএনপি। আজ শনিবার প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হবে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আজ সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বিএনপির পক্ষ থেকে এ কথা বলা হয়।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হবে কি না জানতে চাওয়া হলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমরা অবশ্যই প্রধানমন্ত্রীকে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে দাওয়াত দিব। আজই তাঁর কাছে দাওয়াতপত্র যাবে।’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন, ‘স্বাধীনতা কারো ব্যক্তিগত সম্পদ নয়। এটি দেশের জনগণের সম্পদ। কারো খেতাব কেড়ে নেওয়া, না নেওয়াতে জনগণের কিছু আসে যায় না।  আওয়ামী লীগ সবসময় জাতিকে দুভাগে ভাগ করছে—স্বাধীনতার পক্ষ-বিপক্ষ। স্বাধীনতার চেতনা কি গণতন্ত্র হত্যা করা, দিনের ভোট রাতে করে ক্ষমতা দখল করা? এ জন্য তো আমরা স্বাধীনতা চাইনি। আমরা স্বাধীনতা চেয়েছি গণতন্ত্রের জন্য। কোনো ব্যাক্তি-পরিবারের জন্য দেশ স্বাধীন করিনি, এটা স্পষ্ট।’

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ‘আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য যে, দলটি স্বাধীনতার পরে ক্ষমতায় ছিল, তারা গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। যার যে অবদান, সেটাকে সম্মান দিতে হবে। আমরা ৭ মার্চ নয় শুধু, ২ মার্চ, ৩ মার্চ পালন করব। আমরা ৭ মার্চ পালন করব কারণ, ওই দিন শেখ মুজিবুর রহমান ভাষণ দিয়েছিলেন। এটা তো অস্বীকার করার কিছু নেই। এটা ইতিহাস, এটাকে সম্মান করতে হবে। কারণ যার যে অবদান, তাঁকে তার সম্মান অবশ্যই দিতে হবে। এগুলো ইতিহাস।’