স্বামীকে ১০ টুকরা করে ফ্রিজে ভরলেন স্ত্রী! 

দিল্লিতে শ্রদ্ধা ওয়াকারের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের রেশ না কাটতেই শহরটির পূর্বাঞ্চলে একই ধরনের আরেকটি ঘটনা সামনে এনেছে পুলিশ।

পূর্ব দিল্লির পাণ্ডব নগরে আগের পক্ষের ছেলের সহায়তায় স্বামীকে হত্যার অভিযোগে এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে দিল্লি পুলিশের অপরাধ শাখা।

শ্রদ্ধা ওয়াকার হত্যা মামলার সঙ্গে এ ঘটনার বিস্ময়কর মিল রয়েছে। এ ক্ষেত্রে স্বামীর মরদেহটি ১০ টুকরা করে ফ্রিজে ঢুকিয়ে রাখেন স্ত্রী।

পুলিশ জানায়, ওই নারী ও তার ছেলে জঘন্য অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন।

গ্রেপ্তার হওয়া পুনম বলেন, তার গহনা বিক্রি করে স্বামী অঞ্জন দাস তার প্রথম স্ত্রীর কাছে টাকা পাঠিয়েছে। বিষয়টি জানতে পেরে তিনি ক্ষিপ্ত হন। তারপর সে তার আগের পক্ষের ছেলে দীপকের সঙ্গে খুনের পরিকল্পনা করে।

পুনমের প্রাক্তন স্বামী ২০১৭ সালে ক্যানসারে মারা যান। তারপর অঞ্জন দাসের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। এ দিকে, দীপক জানান, তিনি এই পরিকল্পনায় শামিল হয়েছিলেন, কারণ অঞ্জন দাস তার স্ত্রীকে হেনস্তা করেছিলেন।

আসামিরা পুলিশকে জানান, তারা জুন মাসে অঞ্জন দাসকে খুন করেছে। প্রথমে তারা ওষুধ মিশিয়ে অঞ্জন দাসকে অজ্ঞান করেন এবং পরে তাকে হত্যা করেন। এরপর দুজনেই মরদেহ কেটে টুকরা টুকরা করে ফেলেন।

পুলিশ জানায়, তারা এখন পর্যন্ত ছয়টি টুকরা উদ্ধার করতে পেরেছে।

প্রসঙ্গত, এ হত্যাকাণ্ডের ধরনটি শ্রদ্ধা ওয়াকার খুনের সঙ্গে মিল রয়েছে। কারণ ২৮ বছর বয়সী আফতাব পুনেওয়ালা তার লিভ-ইন সঙ্গী শ্রদ্ধা ওয়াকারকে শ্বাসরোধে হত্যার পর মরদেহকে ৩৫ টুকরা করেছিল এবং পরে দক্ষিণ দিল্লির মেহরাউলি জঙ্গলে ফেলেছিল।