স্বাস্থের ডিজি-সচিবসহ বেশ কয়েকজন করোনায় আক্রান্ত

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ লেগেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে। সম্প্রতি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলমসহ বেশ কয়েকজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এর মধ্যে আরো আছেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মোঃ আবদুল মান্নান, স্বাস্থ্য মন্ত্রীর একান্ত সচিব কামরুল হাসান, অধিদপ্তরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের লাইন ডিরেক্টর ডা. মিজানুর রহমান এবং স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ ও স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা।

গত ২০ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম ও অধিদপ্তরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের লাইন ডিরেক্টর ডা. মিজানুর রহমান। করোনার উপসর্গ দেখা দেয়ার পর পরীক্ষা করা হলে তাদের রেজাল্ট পজিটিভ এসেছে। বর্তমানে তারা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

এছাড়া ডিজির এপিএস এবং পিএসও করোনায় আক্রান্ত। এমনকি মহাপরিচালকের আশেপাশে যারা সবসময় থাকেন, তাদের অনেকেই এখন করোনা পরীক্ষায় পজেটিভ এসেছেন।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান শুরুর পর প্রথম দিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে করোনাভাইরাসের টিকা নিয়েছিলেন মহাপরিচালক আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। দেড় মাসের মাথায় টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেয়ার আগেই তার শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়লো।

এদিকে করোনার ভ্যাকসিন প্রথম ডোজ নেয়ার পরও আক্রান্ত হয়েছেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মোঃ আবদুল মান্নান। গত মঙ্গলবার তার কোভিড পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। বর্তমানে তিনি ভালো আছেন এবং চিকিৎসকদের পরামর্শ নিচ্ছেন। তার উপসর্গ থাকলেও শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।

আবদুল মান্নানের ছোট ছেলে কয়েকদিন আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে সেখান থেকে তিনি করোনায় সংক্রমিত হন।

প্রসঙ্গত, করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫ হাজার ৩৫৮ জন। বাংলাদেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা শনাক্ত হয় এবং ১৮ মার্চ ভাইরাসটিতে প্রথম মৃত্যু হয়।