স্বাস্থ্যবিধি কার্যকরে ফের নামছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

দেশে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় আবারো স্বাস্থ্যবিধি মানাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে এক বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সাংবাদিকদের এই তথ্য জানায়।

মাস্ক না পরলে জরিমানা করবে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ বিষয়ে কয়েকটি নির্দেশনা দিয়ে জেলা প্রশাসনের কাছে ইতিমধ্যে চিঠি পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত নামানোর কথা জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত যেগুলো ছিল সেগুলো মানাতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। যারা মাস্ক না পরে তাদেরকে জরিমানা করবে। নো মাস্ক-নো সার্ভিস কর্মসূচিকে আরও কঠোরভাবে প্রয়োগ করবে। বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে গেস্ট কন্ট্রোল করবে।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আমরা করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন। ইতিমধ্যে হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানকে উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দেয়ার জন্য ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। আমাদের হাসপাতালগুলোতে ওষুধ ও অক্সিজেনের কোনো স্বল্পতা নেই।

অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস ও স্বাস্থ্যবিধি না মানায় করোনা বাড়ছে জানিয়ে জাহিদ মালেক বলেন, দেশের বিভিন্ন পর্যটন এলাকায় মানুষের ভিড় বাড়ছে। পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানও বেড়েছে। এসব জায়গায় স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো লক্ষণ নেই। এসব জায়গায় গেলে মনে হয়, দেশে করোনা নেই।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলাচল করা, নো মাস্ক নো সার্ভিস না মানা, মাত্রাতিরিক্ত সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া, মাস্ক ব্যবহার না করা করোনা বৃদ্ধির অন্যতম কারণ। নতুন করে যুক্ত হয়েছে করোনার টিকা গ্রহণে অনীহা।

দেশে গত কয়েক দিন ধরে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৬ দিন পর সর্বোচ্চ ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৭৭৩ জনের শরীরে, যা ৮৭ দিন পর সর্বোচ্চ। এজন্য সরকার নতুন করে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে কড়াকড়ি আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

উল্লেখ্য, দেশে গত কয়েক দিন ধরে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৬ দিন পর সর্বোচ্চ ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৭৭৩ জনের শরীরে, যা ৮৭ দিন পর সর্বোচ্চ। এজন্য সরকার নতুন করে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে কড়াকড়ি আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।