১৯৭১ সালের যুদ্ধ নিয়ে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর মন্তব্যের নিন্দা পাকিস্তানের

ঢাকা: ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধকে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসে মদত দেয়ার যে অভিযোগ করেছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে পাকিস্তান।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধকে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসে মদত দেয়ার যে অভিযোগ করেছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে পাকিস্তান।

গতকাল সোমবার ( ১৩ ডিসেম্বর) পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে রাজনাথ সিংয়ের বক্তব্যকে অযৌক্তিক, ভিত্তিহীন এবং প্ররোচনামূলক বলে আখ্যায়িত করা হয়।

বলা হয় সন্ত্রাসের বিষয়ে অপ্রমাণিত অভিযোগ করেছেন তিনি এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে হুমকি দিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে পাকিস্তানের প্রভাবশালী পত্রিকা অনলাইন ডন।

এতে বলা হয়, একদিন আগে রাজনাথ সিং তার বক্তব্যে বলেছেন, ১৯৭১ সালের যুদ্ধ এখনও স্মরণ করিয়ে দেয় যে, ধর্মের ভিত্তিতে ভারত ভাগ ছিল ঐতিহাসিক ভুল। তারপর থেকে ভারতের বিরুদ্ধে অব্যাহতভাবে প্রক্সি-যুদ্ধে লিপ্ত পাকিস্তান।

রাজনাথ সিং আরো বলেছেন, ‘সন্ত্রাসে মদত দেয়া এবং ভারত বিরোধী অন্য কর্মকা-ের মাধ্যমে ভারতকে ভাঙতে চায় পাকিস্তান।

১৯৭১ সালে তাদের পরিকল্পনা ভণ্ডুল করে দিয়েছে ভারতীয় বাহিনী। আর বর্তমানে আমাদের সাহসী বাহিনী সন্ত্রাসের শিকড় নির্র্মূূল করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

আমরা সরাসরি যুদ্ধে বিজয়ী হয়েছি। একইভাবে আমরা প্রক্সি-যুদ্ধেও বিজয় অর্জন করবো’।
রাজনাথ সিংয়ের এ বক্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অসিম ইফতিখার আহমেদ।

তিনি বলেছেন, প্রতিষ্ঠিত সত্য নিয়ে প্রশ্ন তুলে রাজনাথ সিং অযৌক্তিক, ভিত্তিহীন এবং প্ররোচনামূলক মন্তব্য করেছেন। এর কড়া নিন্দা জানায় পাকিস্তান।

তিনি সন্ত্রাস ইস্যুতে অপ্রমাণিত অভিযোগ এনেছেন এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে হুমকি দিয়েছেন। পাকিস্তানি এই মুখপাত্র আরো বলেন, এটা হলো ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) ইতিহাসকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন, সংশোধনের অভিপ্রায়ে এবং বিভ্রান্তিকর চিন্তাধারার ফল।

তারা মিথ্যা সাহসিকতায় লিপ্ত। ভারতের গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যগুলোতে নির্বাচন যখন ঘনিয়ে আসছে তখন তারা বিশেষ সুবিধা নেয়ার জন্য এসব কথা বলছে।

উত্তর প্রদেশ এবং অন্য রাজ্যগুলোতে বিজেপি-আরএসএস বিজয়ী হতে মরিয়া। তাই প্রতিরক্ষামন্ত্রীর এমন প্ররোচনামূলক বক্তব্যের বিষয়কাল বিস্ময়কর নয়।

এর মধ্য দিয়ে তারা উগ্র জাতীয়তাবাদকে জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করছেন। একই সঙ্গে কট্টর হিন্দু জাতীয়তাবাদ এজেন্ডার সুবিধা নিতে চাইছেন।

পাকিস্তানি ওই মুখপাত্র আরো বলেন, ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বুক ধড়ফড়ানি আর যুদ্ধংদেহী ভাব নতুন কিছুই নয়।

তবে এতে আরো প্রমাণ মিলেছে যে ভারত দায়িত্বহীনের মতো আচরণ করে। একই সঙ্গে তারা নিরলসভাবে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধংদেহী অবস্থানে থাকে।

সন্ত্রাস ইস্যুতে এই মুখপাত্র বলেন, ভারত দখলীকৃত জম্মু ও কাশ্মীরে কাশ্মীরিদের বিরুদ্ধে হিন্দুত্ববাদী শাসকদের অনুপ্রেরণায় কিভাবে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চালাচ্ছে ভারত, সে বিষয়ে ভালভাবে অবগত আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

তিনি বলেন, পাকিস্তানে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ভারত সরকার যে পরিকল্পনা নিয়ে সহায়তা করছে, প্ররোচনা দিচ্ছে, অর্থায়ন করছে এবং তা পরিচালনা করছে সে বিষয়ে অকাট্য প্রমাণসহ একটি বিস্তারিত দলিল গত বছর নভেম্বরে উপস্থাপন করেছে পাকিস্তান।

ভারতের আগ্রাসী বাসনাকে বানচাল করে দিতে পাকিস্তান পুরোপুরি সক্ষম এ বিষয়টি বিশ্ব জানে।

সাম্প্রতিক অতীতে আমরা এ বিষয়ে আমাদের সক্ষমতা ও সংকল্প প্রদর্শন করেছি। আমরা বিজেপি নেতাদেরকে যেকোনো রকম অকল্পনীয় দুঃসাহস দেখানো থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিচ্ছি।

একই সঙ্গে ভারতের অভ্যন্তরীণ নির্বাচনী রাজনীতিতে পাকিস্তানকে টেনে না নেয়া বন্ধ করার আহ্বান জানাচ্ছি।

প্রভাতনিউজ/এবিএস