২০ জন ছাত্রকে মাদরাসা থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডব চলাকালে সোমবার (২৬ এপ্রিল) রাতে মাদরাসার শিক্ষা সচিব মুফতি সামসুল হক সরাইলী স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাদের বহিষ্কার করা হয়। বহিষ্কৃতরা সবাই জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসার ২০২০-২০২১ ঈসায়ী শিক্ষা বর্ষের ছাত্র ছিল।

বহিষ্কৃতরা হলো, আশেক এলাহি, আবু হানিফ, মিছবাহউদ্দিন, আশরাফুল ইসলাম, আলাউদ্দিন, মবকুল হোসেন, রফিকুল ইসলাম, মুবারকুল্লাহ, বোরহান উদ্দিন, আবদুল্লাহ আবজাল, মো. জুবায়ের, হিজবুল্লাহ রাহমানী, জুবায়ের, শিব্বির আহমদ, ইফতেখার আদনান, সাইফুল ইসলাম, মো. সোলাইমান, রাকিব বিল্লাহ, তারেক জামিল ও মো. হাবিবুল্লাহ। তাদের সবার বয়স ২০ থেকে ২২ বছরের মধ্যে।

মাদরাসার শিক্ষা সচিব মুফতি শামসুল হক সরাইলী স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়, জামিয়ায় ভর্তি পালনীয় শর্তাবলীর ২৫ নম্বর ধারায় মাদরাসার সমুদয় রীতিনীতি ও আইন-কানুন অমান্য করে হুজুরদের বাঁধা উপেক্ষা করে গত ২৬ মার্চ বিকেলে জেলার সরকারি স্থাপনায় হামলা চালানো হয়। হামলায় এই ২০ জন মাদরাসার ছাত্র অংশ নিয়েছে বলে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ জানতে পেরেছে। তাই তাদেরকে মাদরাসা থেকে বহিষ্কার করেছে জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসা কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক আবদুল হক বলেন, ২৬ মার্চ মাদরাসার শিক্ষকদের বাঁধা-নিষেধ উপেক্ষা করে সরকারি স্থাপনায় হামলা চালিয়েছে। তাই তাদেরকে মাদরাসা থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।